মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, 2০২1
বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য: পরিস্থিতি জটিল করার চেষ্টা প্রতিহত করা হবে
হাজারিকা অণলাইন ডেস্ক
Published : Thursday, 19 November, 2020 at 4:36 PM

 বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অপসারণের জন্য ইসলামী দলের দাবির বিষয়ে সরকার এবং ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলেনি বা প্রতিক্রিয়া দেখায়নি। বিষয়টি পর্যবেক্ষণে রাখার কথাই বলা হচ্ছে। অনেকে এ নিয়ে কথা বলতেও চাচ্ছেন না।
তবে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে পরিস্থিতি জটিল করার চেষ্টা চালালে তা প্রতিহত করা হবে বলে সরকার ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা জানিয়েছেন। এ জন্য আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী প্রস্তুত বলেও তারা জানান।

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক কয়েকজন নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এ বিষয়ে তারা এখনই দল বা সরকারের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করতে চান না। তারা বিষয়টি পর্যবেক্ষণে রেখেছেন। কেউ কেউ বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে অস্বস্তি প্রকাশ করেছেন। আবার কেউ বলছেন কে, কী বললো সেটাকে গুরুত্ব দেওয়ার যৌক্তিকতা নেই। রাজধানীর ধোলাইপাড়ে নির্মাণাধীন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য অপসারণ ও নির্মাণ কাজ বন্ধের দাবি জনিয়েছে দুইটি ইসলামি রাজনৈতিক দল।

গত শুক্রবার চরমোনাইর পীর ও ইসলামী আন্দোলনের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ ফয়জুল করীম ভাস্কর্য নির্মাণের স্থল ঢাকার ধোলাইপাড় এলাকায় এক সমাবেশে বলেছেন, “ভাস্কর্যের নামে মূর্তি স্থাপনের চক্রান্ত তৌহিদি জনতা রুখে দেবে। রাষ্ট্রের টাকা খরচ করে মূর্তি স্থাপনের অপরিণামদর্শী সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে ফিরে আসতে হবে। যদি সরে না আসে, তাহলে কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো। ”

একই দিনে, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ও হেফাজতে ইসলামের নেতা মাওলানা মামুনুল হক ঢাকার বিএমএ মিলনায়তনেএক অনুষ্ঠানে বলেন, “বঙ্গবন্ধুর মূর্তি স্থাপন বঙ্গবন্ধুর আত্মার সঙ্গে গাদ্দারি করার শামিল। যারা ভাস্কর্যের নামে মূর্তি স্থাপন করে তারা বঙ্গবন্ধুর সুসন্তান হতে পারে না। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একজন মুসলিম হিসেবে পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছেন। তার মূর্তি তৈরি করে রাস্তার মোড়ে মোড়ে স্থাপন করা হলে তা হবে তার আত্মার সঙ্গে বেইমানি। ” মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছে বিষয়টি সম্পর্কে সাংবাদিকরা জানতে চান।  

এ সময় সেতুমন্ত্রী বলেন, “বিষয়টি আমরা পর্যবেক্ষণ করছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এখনো করোনা আক্রান্ত। তিনি এখন সামনে আসবেন না। উনি সুস্থ হলে এটা নিয়ে হয় তো আপনাদের সঙ্গে কথা বলবেন বা ওনার সঙ্গে আপনারা আলাপ করতে পারেন। ”  এদিকে, বিষয়টি সম্পর্কে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর তিন সদস্যের সঙ্গে কথা বলার সময় তারা কোনো প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। তারাও পর্যবেক্ষণে রাখার কথা বলেছেন। তবে তারা নামও প্রকাশ করতে চাননি। এই অযৌক্তিক দাবিকে পাত্তা দেওয়া হবে না বলে তারা জানান।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য আব্দুর রহমান বলেন, “ভাস্কর্যকে তারা মূর্তি বলছে। দুইটা এক জিনিস না। অনেক মুসলিম দেশে ভাস্কর্য আছে। এ বিষয়টাকে নিয়ে ধর্মীয় অনুভূতির সঙ্গে যারা মিলিয়ে বিরোধিতা করতে চায়, তাদের ভেবে দেখা উচিত। অন্যায় দাবি নিয়ে সমস্যা করলে জনগণ বিচার করবে। ” এ বিষয়ে জানতে চাইলে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, “ভাস্কর্য কী জিনিস এটা তারা জানেন না। তাদের শিক্ষার অভাব আছে। শিল্পকর্ম, ভাস্কর্য তারা বোঝে না। স্বাধীনতা সংগ্রামেও এরা বঙ্গবন্ধুর বিরোধিতা করেছিলো। কিন্তু স্বাধীনতা কি ঠেকাতে পেরেছে। তাই এদের কথা আমলে নেওয়া দরকার নেই। তবে কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে জগণকে নিয়ে প্রতিহত করা হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীও নিশ্চয়ই ব্যবস্থা নেবে। ”

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, “বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতা করা দুরভিসন্ধিমূলক। বঙ্গবন্ধুর প্রতি সম্মান দেখানোর যে নাগরিক দায়িত্ব তাতে অন্তরায় সৃষ্টি করা সহ্য করা হবে না। যে কোনো বাধা প্রতিহত করার জন্য আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনগুলো সব সময় প্রস্তুত। এরা দেশ বিরোধী, স্বাধীনতা বিরোধী। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এদের প্রতিহত করা হবে। ”


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি