শনিবার, ১৭ এপ্রিল, 2০২1
আরজুকে নিয়ে উপসচিব সোহেল রানার ফেসবুক স্ট্যাটাস!
Published : Monday, 8 March, 2021 at 6:22 PM, Update: 08.03.2021 6:31:41 PM

মানুষের মৃত্যুর পরও তাকে নিয়ে তোমাদের মিথ্যাচার চালিয়ে যেতে হয়! কি অদ্ভুত, ভন্ড আর মিথ্যাবাদী এই সমাজ! ভাবাই যায় না.....ফেনীর বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ জনাব আজহারুল হক আরজুর অকাল মৃত্যুতে শোক ও সমবেদনা জানাই। তিনি ছিলেন ভিন্ন ধারার রাজনীতিক। আমাদের রাজনীতির সংস্কৃতিতে একাধিক ধারা একসাথে মিলেমিশে চলতে খুব একটা বেশি দেখা যায় না। এক ধারা অন্য ধারাকে গ্রাস করতে চায়। এখানে হয় মূলধারার সাথে আপনি মিলবেন নতুবা হারিয়ে যাবেন- এটাই এই ল্যান্ডের এই মূহুর্তের 'ল'। এই 'ল' ভয়ানকভাবে সমাজের জন্য ক্ষতিকর।
অথচ, রাজনীতির মূল শক্তি শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানে, সংযোগে; বিজয় বা বিভাজনে নয়। এখানে এখন সবাই বিজয়ের পিছনেই ছোটে; বিজয়ের ভেতরে লুকিয়ে থাকা পরাজয়কে অবজ্ঞা করে।মানুষের জীবন এক নিরন্তর মিথ্যার জীবন। মানুষ প্রিয়জন, প্রয়োজন, অপ্রয়োজন সবার সাথেই সর্বদা মিথ্যা বলে অভ্যস্ত-শত সহস্র বছর ধরেই।  এই মিথ্যাগুলো আপাতদৃষ্টে পরিতাজ্য বলে বিজ্ঞজনেরা প্রচার করলেও, এই মিথ্যাগুলোই মনুষ্য সমাজের কিছু গুরুত্বপূর্ণ  সুতার গিট্টু৷ গিট্টু ছুটে গেলে সমাজের সুতাগুলো খসে পড়বে, সমাজ  আকৃতি হারিয়ে অস্তিত্বহীন হয়ে পড়বে। অর্থাৎ মিথ্যা ছাড়া মানুষ আবারো সমাজহীন বসবাস কাঠামোতে ফেরত যাবে।
অনেকেই ভাবছেন- মিথ্যা ছাড়া সমাজ চলবে না এটা একটা বিগ, র‍্যাডিকাল ও আনভেরিফাইড ক্লেইম। মানুষকে সত্যবাদী হওয়ার জন্য যে প্রচলিত নির্দেশনাগুলো শিক্ষা, সংস্কৃতিতে প্রচলিত আছে সেগুলো কি তাহলে এক ধরণের হিপোক্রেসি?
হিপোক্রেসি না বলে বরং আমি সেগুলোকে দেখি আমাদের বোঝাপড়ার সীমাবদ্ধতার সমস্যা হিসেবে। কম বোঝাপড়া নিয়েই যেহেতু আমাদের সূর্য ওঠে ও অস্ত যায়, সেহেতু কম বোঝাপড়া নিয়েই আমাদের বিছানা ছাড়তে হয়, কিছু খাবার খেতে হয়, কিছু মেইকশিফট আদর্শ নিয়ে আগাতে হয়। মানুষের অস্তিত্বের এই "মেইকশিফটনেস" সম্পূর্ণ জ্ঞান (কম্পলিট নলেজ) পাওয়ার আগ পর্যন্ত থেকেই যাবে। ফলে, মিথ্যাকেও অনেক সময় সমাজ সত্য বলবে, আবার অনেক সত্যকেও এই সমাজ মিথ্যা বলে যাবে।
ফলে, মানুষ মিথ্যা বলার পেছনে একটা কারণ অজ্ঞতা। আর একটি কারণ, সমাজ কাঠামো টিকিয়ে রাখা যেহেতু সমাজ নিজেই কিছু মিথ্যার উপর দাঁড়িয়ে। আর বাকি কারণ ব্যক্তিগত অস্তিত্ব রক্ষা অথবা, ব্যক্তি হিসেবে গ্রো করা, অথবা ব্যক্তির শ্রেষ্ঠত্ব বৃদ্ধির চেষ্টা।
আমার ভিতরের এই প্রয়োজনীয় মিথ্যাবাদীর সাথে পরিচয় আমার জীবনের এক বড় শিক্ষা! আমি মিথ্যা থেকে পুরোপুরি মুক্তি চাই না ঠিক তবে মুক্তির স্বপ্ন যে একেবারে দেখিনা সেটিও না। তবে, পুরোপুরি সত্য জীবন কেমন সেটাও আবার আমি জানিনা।
বাই দি ওয়ে, নাইস মিটিং মি!


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি