বৃহস্পতিবার, ২৬ মে, 2০২2
জমি বিক্রি করায় বৃদ্ধ মা-বাবাকে ঘরছাড়া করলেন ছেলেরা
হাজারিকা অনলাইন ডেস্ক
Published : Friday, 21 January, 2022 at 5:49 PM

শেষ সম্বল ৫ শতক জমি বিক্রি করে দেয়াই কাল হয়ে দাঁড়ায় বৃদ্ধ হাবিবুর রহমানের (৬৫) শেষ জীবনে। স্ত্রী সূর্য খাতুন (৫০) সহ তাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দেন ছেলেরা। এ অবস্থায় কোথাও আশ্রয় না পেয়ে শীতের রাতে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছিলেন তাঁরা। খবর পেয়ে একটি টিম পাঠিয়ে তাদের উদ্ধার করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন। উদ্ধারের পর শীতবস্ত্রসহ খাবার দিয়ে ওই বৃদ্ধ দম্পতিকে নিজ ঘরে তুলে দেন এবং তার ছেলেমেয়েদের কড়া হুশিয়ারীও দিয়ে আসেন।

খাবার ও শীতবস্ত্রসহ নিজ বাড়িতে ফিরতে পেরে মহা খুশী ওই বৃদ্ধ দম্পতি। আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায়সহ ইউএনও মো. তমাল হোসেনের দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করেন তারা। বৃহস্পতিবার রাতে মানবেতর এই ঘটনাটি ঘটেছে গুরুদাসপুর উপজেলার মহারাজপুর গ্রামে।
বৃদ্ধ হাবিবুর রহমান জানান, তার চার ছেলে এক মেয়ে রয়েছে। সকলেরই বিয়ে হয়েছে। তার প্রথম স্ত্রী দীর্ঘদিন অসুস্থ থেকে মৃত্যুবরণ করেন। স্ত্রীর মৃত্যুর পর ছেলে-মেয়ে এবং ছেলের বউরা কেউ তাকে দেখাশোনা করেনি। তাই বাধ্য হয়ে শেষ জীবনে চলার সঙ্গী হিসাবে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। তিনি নিজেও পক্ষাঘাত রোগে আক্রান্ত হওয়ার কারণে কোনও কাজ করতে পারেন না। এছাড়া ছেলেমেয়েরা তাকে ভরণপোষণও দেয়না। এ জন্য নিজের কিছু জমি বিক্রি করে দিয়েছিলেন সংসার চালানোর জন্য।

তিনি বলেন, ওই জমি বিক্রি করায় তার ছেলেরা তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। রাতে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছিলেন। কনকনে শীতে কাঁপছিলেন। তাদের এ খবর শুনে গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তমাল হোসেনের সহযোগিতায় তিনি নিজ বাড়িতে ফিরতে পেরেছেন এবং শীতবন্ত্র ও খাবার পেয়েছেন। এসময় ইউএন’র প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।

হাবিবুর রহমানের ছেলে ফুয়াদ রহমান জানান, তার মা মারা যাওয়ার পর বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করেন। সেই স্ত্রীর কথা শুনে ৫ শতক জমি বিক্রি করেছেন তার বাবা। জমি বিক্রি করার কারণে তাদের বসবাসের সমস্যা হচ্ছে। এ কারণে অভিমানে তার বাবাকে তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রীসহ বাড়ি থেকে বের করে দেন। এজন্য তারা অনুতপ্ত। এমন কাজ তারা আর কখনই করবেন না বলে জানান।

ইউএনও তমাল হোসেন জানান, নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার চাপিলা ইউনিয়নের মহারাজপুর গ্রামের বৃদ্ধ হাবিবুর রহমানের ৪ ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পারেন প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর পর দ্বিতীয় বিয়ে করেন তিনি। ওই দ্বিতীয় স্ত্রী নিয়েই দুই শতক জায়গার ওপর তৈরি টিনশেড ঘরে বসবাস করতেন।  ছেলে মেয়েদের কেউ বৃদ্ধ দম্পতিকে ভরণপোষণ দিতনা। নিজেদের জীবন-জীবিকা নির্বাহের জন্য বৃদ্ধ হাবিবুর রহমান তার শেষ সম্বল ৫ শতক জমি বিক্রি করে দিলে সন্তানেরা ক্ষুদ্ধ হয়ে তাদের দুজনকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। তার বাড়ি থেকে বিতাড়িত হওয়ার পর কোথাও আশ্রয় না পেয়ে পথে পথে ঘুরতে থাকেন। স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের মাধ্যমে জানতে পারেন বৃদ্ধ দম্পতি কোথাও আশ্রয় না পেয়ে পথে পথে ঘুরে বেড়াচ্ছেন এবং তীব্র শীতে জুবুথুবু হয়ে পড়েছেন। খবর শুনেই তিনি নিজ গাড়ি দিয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ণ কর্মকর্তা কার্যালয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ নজরুল ইসলাম ও স্কাউট সদস্য রাসেল আহমেদকে দিয়ে শীতবস্ত্র ও কিছু খাবার পৌঁছান ওই বৃদ্ধ দম্পতির কাছে। পরে বৃদ্ধ দম্পতিকে তাদের নিজ বাড়ি-ঘরে তুলে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, তার ছেলেদের সাথে তিনি কথা বলেছেন। তারা আর কখনও যেন তার বাবা-মাকে বাড়ি থেকে বের করে না দেন এবং নির্যাতন করা না করেন সে বিষয়ে অঙ্গীকার নেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে এমন ঘটনা ঘটালে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও তিনি তাদেরকে হুঁশিয়ার করেছেন।
আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল হাজারী।   ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গোলাম কিবরীয়া হাজারী বিটু্।   প্রকাশক: মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী।
সহ সম্পাদক- রুবেল হাসান: ০১৮৩২৯৯২৪১২।  বার্তা সম্পাদক : জসীম উদ্দিন : ০১৭২৪১২৭৫১৬।  সার্কুলেশন ম্যানেজার : আরিফ হোসেন জয়, মোবাইল ঃ ০১৮৪০০৯৮৫২১।  রিপোর্টার: ইফাত হোসেন চৌধুরী: ০১৬৭৭১৫০২৮৭।  রিপোর্টার: নাসির উদ্দিন হাজারী পিটু: ০১৯৭৮৭৬৯৭৪৭।  মফস্বল সম্পাদক: রাসেল: মোবা:০১৭১১০৩২২৪৭   প্রকাশক কর্তৃক ফ্ল্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।  বার্তা, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন বিভাগ: ০২-৪১০২০০৬৪।  ই-মেইল : [email protected], web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি