বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
একরাম হত্যা মামলা নিয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনা
Published : Sunday, 26 November, 2017 at 9:22 PM, Update: 26.11.2017 9:32:17 PM

একরাম হত্যা মামলা নিয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনাহাজারিকা ডেস্ক॥ হাইকোর্টের এপিলেট ডিভিশন ২৬ তারিখ রোববার আবার একরাম হত্যা মামলার নিষ্পত্তির সময় বেধে দিয়েছে। এবার অবশ্য চার মাসের সময় দেয়া হয়েছে ইতিপূর্বে সিনহাবাবুর নেতৃত্বে এই মামলা দুইবার ছয় মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির সময়সীমা বেধে দেয়া হয়েছিল কিন্তু আদলতের সেই নির্দেশ পালিত হয়নি। কেন হয়নি তার উত্তর হয়তো বা আছে কিন্তু তা অজানাই রয়ে গেছে। ইতিমধ্যে শোনা যাচ্ছে কিছু সমঝোতার কারণে মামলাটি দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তির ব্যবস্থা হয়েছিল কিন্তু মিনারের কারণে অর্থাৎ সাফাই সাক্ষ্যির আবেদন করায় তা সম্ভব হয়নি। এখন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন এপিলেট ডিভিশন আবারও চার মাসের সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে। একরামকে হত্যার সময় যাদেরকে ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে যারা র‌্যাবের হাতে ধরা পড়ার পর আদালতেও যারা দোষস্বীকার করেছে তাদের অনেকেই ইতিমধ্যে বিদেশে চলে গেছে এবং অধিকাংশই জামিনে মুক্ত আছে। এরা বলছে এই মামলায় সকলকেই খালাস করে দেয়া হবে। সুতরাং যতদ্রুত মামলার নিষ্পত্তি হয় ততদ্রুতই তারা মামলা থেকে রেহাই পেয়ে যাবে। এখন সময়সীমা বেধে দেয়ার পরও মানুষের মধ্যে এ নিয়ে কোন আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। তবে মানুষ চায় এই চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়।
একরাম হত্যা মামলা নিয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনাফেনীর ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান একরামুল হক একরাম হত্যা মামলার আসামি বিএনপি নেতা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ওরফে মিনার চৌধুরীকে দেওয়া হাইকোর্টের জামিন স্থগিত রেখেছে।   দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতের মিনার চৌধুরীর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী শরিফ উদ্দিন চাকলাদার। গত ২২ অক্টোবর তার পাসপোর্ট বিচারিক আদালতে জমা রাখার শর্তে  বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ মিনার চৌধুরীকে ছয়মাসের জামিন দেন। হাইকোর্টের জামিন আদেশ স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পর ২৫ অক্টোবর চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহবুব হোসেনের আদালত হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেন। গত বছরের ২৪ নভেম্বর হাইকোর্ট এ মামলায় মিনার চৌধুরীকে ছয়মাসের জামিন দিলে ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষ। সে আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ১৯ মার্চ মিনার চৌধুরীর জামিন বাতিল করে দেন আপিল বিভাগ।
একইসঙ্গে ৬ মাসের মধ্যে মামলার বিচারকাজ শেষ করার নির্দেশ দেন।  ২০১৪ সালে ২০ মে ফেনী শহরের একাডেমি এলাকায় সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে গুলি করে, কুপিয়ে ও পুড়িয়ে একরামকে হত্যা করে। এ ঘটনায় তার ভাই রেজাউল হক জসিম বাদী হয়ে বিএনপি নেতা মিনার চৌধুরীকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাতনামা ৩০-৩৫ জনের বিরুদ্ধে ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন।



সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি