শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
কাশ্মীর সীমান্তে এক মাস ধরে পাঁচ পাক সেনার মরদেহ পড়ে আছে
Published : Tuesday, 10 September, 2019 at 8:00 PM

 কাশ্মীর সীমান্তে এক মাস ধরে পাঁচ পাক সেনার মরদেহ পড়ে আছে  আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥
গত মাসের শুরুতে কাশ্মীরে দুই দেশের সীমানা নির্ধারণকারী রেখা লাইন অব কন্ট্রোলে (এলওসি) ভারত-পাকিস্তান গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। সেই গোলাগুলিতে পাকিস্তানের পাঁচ সেনা নিহত হয়। তাদের মরদেহ এখনও সীমান্তেই পড়ে আছে। একটি ভিডিও প্রকাশ করে এমন দাবি করছে ভারত। ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল এনডিটিভির এক অনলাইন প্রতিবেদনে এই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। আর ভিডিওটি প্রকাশ করেছে দেশটির বার্তা সংস্থা এএনআই। মূলত এএনআই তাদের টুইটারে পেজে মরদেহ পড়ে থাকার ভিডিওটি শেয়ার করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, গত মাসের প্রথম সপ্তাহে কাশ্মীরের কেরান সেক্টরে গোলাগুলির ঘটনায় পাক সীমান্তরক্ষী বাহিনী পাকিস্তান বর্ডার অ্যাকশন টিমের (ব্যাট) পাঁচ সদস্য নিহত হয়। তারা অনুপ্রবেশ করার চেষ্টা করছিল বলে দাবি ভারতের। গতকাল সোমবার ভারতীয় সেনাবাহিনী সেই ভিডিওটি গণমাধ্যমের কাছে দেয়। তারা বলছে, লাইন অব কন্ট্রোলে ব্যাটের অন্তত পাঁচজন সদস্যের মরদেহ পড়ে আছে। এছাড়াও অস্ত্র সরঞ্জামও ছিল। এক সেনা কর্মকর্তা জানান, ভারতে জঙ্গি হামলার চেষ্টায় তারা অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছিল। ভারতীয় সেনাবাহিনীর দক্ষিণ কমান্ডের দায়িত্বরত কর্মকর্তা এসকে সাইনি পুনেতে সাংবাদিকদের বলেন, ‘দক্ষিণ ভারত এবং ভারতের উপূকলবর্তী এলাকায় জঙ্গি হামলা হতে পারে। আমরা সে বিষয়ে অনেক গোয়েন্দা তথ্য পেয়েছি।’ উল্লেখ্য, গত ৫ আগস্ট কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে ভারত সরকার। তারপর সীমান্তে পাক-ভারত সেনাদের মধ্যে ব্যাপক গোলগুলির ঘটনা ঘটে। তাতে উভয় দেশের বেশ কিছু সেনা নিহত হয়। তবে এই সংখ্যা ঠিক কতজন তা সঠিকভাবে জানা যায়নি।


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি