শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০
আমার স্বামী শারীরিকভাবে অক্ষম সে এ কাজ করতে পারেনা
Published : Monday, 19 October, 2020 at 7:33 PM

জেলা প্রতিনিধি ॥
বাগেরহাটের মোংলায় শিশু ধর্ষণ মামলার একমাত্র আসামি আব্দুল মান্নান সরদারকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। তবে এটি ষড়যন্ত্র বলে দাবি করছেন আব্দুল মান্নানের সাবেক স্ত্রী আমেনা বেগম। তিনি বলেন, যে মামলায় আমার সাবেক স্বামীকে সাজা দেয়া হয়েছে, সে এ ধরনের কাজ করতে পারে না। আমার স্বামী শারীরিকভাবে অক্ষম। সে ষড়যন্ত্রের শিকার। আমি এ ঘটনার ন্যায় বিচার চাই। আমেনা বলেন, শারীরিকভাবে অক্ষম হওয়ায় বছরখানেক আগে আমি আব্দুল মান্নানকে ডিভোর্স দিয়েছি। স্থানীয় ইউপি সদস্য শত্রুতার জেরে এ মামলা করেছেন। মামলার চার্জ গঠনের মাত্র সাত দিনের মাথায় সোমবার দুপরে আব্দুল মান্নান সরদারকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। একই সঙ্গে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।

এ রায় ঘোষণা করেন বাগেরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. নূরে আলম। এর আগে, এতো দ্রুত কোনো ধর্ষণ মামলার রায় হয়নি। মামলার বিবরণে জানা যায়, ৩ অক্টোবর বিকেলে মোংলার মাকোড়ডোন গ্রামের আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকায় এক শিশুকে নিজের ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে প্রতিবেশী আব্দুল মান্নান সরদার। ওই রাতে মেয়েটির মামা মোংলা থানায় আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোংলা থানার এসআই বিশ্বজিত মুখার্জি ধর্ষণের সত্যতা পেয়ে আট দিনের মাথায় আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি রনজিৎ কুমার মণ্ডল বলেন, মামলাটি পুলিশ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করেছে। এই সংক্ষিপ্ত সময়ে বাগেরহাটের আদালতে রায় ঘোষণার মধ্যে দিয়ে একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হলো।


সম্পাদক : জয়নাল হাজারী।  ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯
মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী কর্তৃক ফ্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।
আবু রায়হান (বার্তা সম্পাদক) মোবাইল : ০১৯৬০৪৯৫৯৭০ মোবাইল : ০১৯২৮-১৯১২৯১। মো: জসিম উদ্দিন (চীফ রিপোর্টার) মোবাইল : ০১৭২৪১২৭৫১৬।
বার্তা বিভাগ: ৯১২২৪৬৯, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন: ০১৯৭৬৭০৯৯৭০ ই-মেইল : [email protected], Web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি