Hazarika Pratidin http://www.hazarikapratidin.com/ Most popular daily newspaper in Bangladesh en-us Wed, 17 Jan 2018 05:05:52 +0000 ‘তালগাছটা আমার’ এই দাবির মুখে সালিসি বৈঠক করে লাভ নেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46342 Hazarika46342Pratidin Wed, 17 Jan 2018 22:40:00 +0000 আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী -Hazarika আগামী সাধারণ নির্বাচনে যোগদানের প্রশ্নে বিএনপির সুর নরম হচ্ছে মনে হয়। আমি বরাবর বলে এসেছি, বিএনপি ২০১৪ সালের ভুলের পুনরাবৃত্তি আর করবে না। ওই নির্বাচনে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516120777.jpg
‘তালগাছটা আমার’ এই দাবির মুখে সালিসি বৈঠক করে লাভ নেই
‘তালগাছটা আমার’ এই দাবির মুখে সালিসি বৈঠক করে লাভ নেই

আগামী সাধারণ নির্বাচনে যোগদানের প্রশ্নে বিএনপির সুর নরম হচ্ছে মনে হয়। আমি বরাবর বলে এসেছি, বিএনপি ২০১৪ সালের ভুলের পুনরাবৃত্তি আর করবে না। ওই নির্বাচনে যোগ না দেওয়া দলের যে মহাভ্রান্তি, এ কথা বিএনপির বহু প্রবীণ শুভাকাঙ্ক্ষী তখনই বলেছেন। এবার এই ভুল করলে বিএনপির অস্তিত্ব বিলুপ্ত হবে। সুতরাং ২০১৮ সালের নির্বাচনে যোগ দেওয়ার প্রশ্নে বিএনপি নেতারা মুখে যা-ই বলুন, তলে তলে যে যোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন, তা পত্রপত্রিকার খবরাখবর দেখলেই বোঝা যায়।
গত ১২ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় থাকার বর্তমান মেয়াদের চার বছর পূর্ণ হয়েছে। এ উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্পষ্ট ভাষায় বলেছেন, ‘এ বছরের শেষ দিকেই সংবিধানের ধারা মেনে নির্দিষ্ট সময়ে নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’ সঙ্গে সঙ্গে বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও মির্জা ফখরুল গর্জে উঠে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ সমস্যা আরো জটিল করবে। বিএনপি আন্দোলন করে দাবি আদায় করবে। অর্থাৎ হাসিনা সরকারের অধীনে তাঁরা নির্বাচনে যাবেন না, তাঁদের নির্বাচন সহায়ক সরকার গঠনের দাবি তাঁরা আন্দোলন করে আদায় করে নেবেন।
আমি এর মধ্যেই এ সম্পর্কে লিখেছি, এটা অক্ষমের আন্দোলন। নির্বাচনের আগে এটা বিএনপির দর-কষাকষি; কিন্তু হাসিনা সরকারের দৃঢ়তার মুখে তারা অবশ্যই এ সরকারের অধীনেই নির্বাচনে আসবে। আন্দোলন করার শক্তি তাদের নেই। তাদের আন্দোলনে জনসমর্থন নেই। সুতরাং নির্বাচনে এলে দলের অস্তিত্ব বজায় থাকবে। অত্যাশ্চর্য কোনো কিছু ঘটলে তারা জয়ী হতেও পারে। অন্যথায় অতি লোভে তাঁতি নষ্ট হবে। বিএনপি পলিটিক্যাল ওয়াইল্ডারনেসে চলে যাবে।
এই বাস্তব অবস্থাটা যে বিএনপি নেতারা বোঝেন তার প্রমাণ, প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে নির্বাচন সম্পর্কিত কথা নিয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখালেও এখন তাঁরা নতুন কথা বলছেন। প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে যে কথা বলেছেন, বিএনপি তার নতুন অর্থ বের করেছে। সম্ভবত প্রধানমন্ত্রীর কথাটার তারা অর্থ করছে নির্বাচনকালে অন্য একটি সরকার থাকবে। তারা এই সরকার গঠন সম্পর্কে বর্তমান সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চায়। এটা শুভংকরের ফাঁকির রাজনীতি। মানুষকে বিভ্রান্ত করার রাজনীতি।
প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে। এর সরলার্থ, নির্বাচনকালে যে সরকার ক্ষমতায় থাকবে সেই সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে। সারা গণতান্ত্রিক বিশ্বেই সেভাবে নির্বাচন হয়। বাংলাদেশে এখন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আছে, তাদের অধীনেই নির্বাচন হবে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে তাদের অধীনে হতো। এই সত্যটাকে গোপন করে বিএনপি সাধারণ মানুষকে বোঝাতে চায়, নির্বাচন হবে সে সময়ের এক সরকারের দ্বারা এবং তার গঠন প্রকৃতি সম্পর্কে তারা বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চায়।
এটা ব্রিটিশ আমলের মুসলিম লীগ রাজনীতির এক ধাপ্পাবাজি। কংগ্রেস নেতারা মুসলিম লীগ নেতাদের ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনে যোগ দিতে বললেই জিন্নাহ বলতেন, আগে আমাদের দাবি (পাকিস্তান প্রতিষ্ঠা) সম্পর্কে আলোচনায় বসুন। এরপর দেখা যাবে, আমরা কিভাবে আন্দোলনে যোগ দিতে পারি। জিন্নাহর চাতুরী সম্পর্কে মওলানা আজাদ গান্ধীকে বারবার সতর্ক করা সত্ত্বেও (দেখুন মওলানা আজাদের স্মৃতিকথা ইন্ডিয়া উইনস ফ্রিডম) গান্ধী বহুবার জিন্নাহর সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন, দুই দিন পরই জিন্নাহ বৈঠক থেকে বেরিয়ে এসে বলেছেন, ‘ফ্যাসিস্ট কংগ্রেস আমাদের কোনো দাবিদাওয়া মানতে রাজি নয়।’ বৈঠক ব্যর্থ হয়েছে। তার দায়ভার বহন করতে হয়েছে গান্ধী ও কংগ্রেসকে।
জিন্নাহর কাছে বহুবার ভারতের বিভিন্ন দলের নেতারা প্রস্তাবিত পাকিস্তানের রূপরেখা কী হবে, তা জানতে চেয়েছেন। জিন্নাহ কোনো রূপরেখা কোনো দিন দেননি। বলেছেন, সময় এলেই পাকিস্তানের রূপরেখা দেওয়া হবে। আমার পাঠকরা লক্ষ করবেন, বিএনপি নির্বাচন সহায়ক যে নিরপেক্ষ সরকারের দাবি জানিয়ে আসছে তার রূপরেখা কী হবে, বহুবার তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে। তারা তা আজ পর্যন্ত দেয়নি। এই সেদিনও বলেছে, খালেদা জিয়া এই রূপরেখা যথাসময়ে দেবেন। এই যথাসময়টি কবে আসবে?
যে নিরপেক্ষ সরকারের রূপরেখাই নেই, তা নিয়ে আলোচনায় বসা যাবে কী করে? আর প্রধানমন্ত্রী কি আলোচনার ডাক দেবেন বেগম জিয়ার কাছে নিজের সম্মান খোয়ানোর জন্য? একবার তো শেখ হাসিনা স্বতঃপ্রবৃত্ত হয়ে বেগম জিয়ার কাছে টেলিফোন করেছিলেন আলোচনার জন্য। সেই টেলিফোন সংলাপে বেগম জিয়া কী ধরনের অশালীন আচরণ করেছিলেন, কী ধরনের অভব্য কথাবার্তা বলেছিলেন, তা কি দেশবাসীর জানা নেই? এরপর প্রধানমন্ত্রী বর্তমান অবস্থায় বিএনপির সঙ্গে কী জন্য আলোচনায় যাবেন? যেখানে আলোচনার কোনো বিষয়বস্তুই নেই।
আগামী নির্বাচন যদি আলোচনার বিষয়বস্তু হয়, তাহলে নির্বাচনের তো নির্দিষ্ট সময় ঘোষণা করা হয়েছে। বিএনপিও দল গোছাতে শুরু করেছে। প্রার্থী বাছাই শুরু করেছে! সুতরাং নির্বাচনের আগে আলোচনার বিষয়বস্তুটা কী? আলোচনার নামে দেশের রাজনীতিতে অচলাবস্থা সৃষ্টির তো কোনো অর্থ হয় না। বিএনপির সঙ্গে কোনো আলোচনা বৈঠকই সফল হবে না। অতীতে হয়নি। ভবিষ্যতেও হবে না। বিএনপি আলোচনা বৈঠকে বসতে চায় সমস্যা সমাধানের জন্য নয়, সমস্যায় জটিলতা সৃষ্টি এবং রাজনৈতিক অচলাবস্থা সৃষ্টির জন্য। আলোচনার নামে এই অচলাবস্থা সৃষ্টি দ্বারা তাদের লাভ, দেশের ক্ষতি। যারা সালিসি মানার নামে বারবার শুধু তালগাছটা চায়, তাদের সঙ্গে তো আলোচনায় বসে কোনো লাভ নেই।
বেগম জিয়া বিএনপির নেতৃত্বে আসার পর দলটিকে জাতে ওঠানোর জন্য স্লোগান তোলা হয়েছিল, দুই নেত্রীর বৈঠক চাই। যুক্তি দেখানো হয়েছিল, এরশাদ স্বৈরশাহীর উচ্ছেদ ঘটানোর জন্য দুই নেত্রীর মধ্যে সমঝোতা দরকার। আমার প্রয়াত বন্ধু সাংবাদিক ফয়েজ আহ্মদ দুই নেত্রীকে একত্রে বসানোর জন্য প্রাণপাত পরিশ্রম করেছিলেন। শেখ হাসিনা রাজি হয়েছিলেন। দুই নেত্রীর একত্রে বসার ছবিও সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছিল। ওই ফটোসেশন পর্যন্তই সার! এরশাদবিরোধী আন্দোলনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ঐক্যবদ্ধ হয়নি। আলাদা আলাদা মোর্চা গঠন করেছে।
আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার ঢাকা সফরে এসে দুই নেত্রীর মধ্যে সমঝোতা প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করেছিলেন। দুজনকে নিজের পাশে বসিয়ে ফটোসেশনও করেছিলেন। লাভ কিছু হয়নি। বারবার দুই দলের মধ্যে একটা সমঝোতা প্রতিষ্ঠার এই চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার কারণ কী? মূল কারণ, সব সময় বিএনপির তালগাছটা দখলে রাখার ইচ্ছা। তাদের কথা হলো, সালিস মানি, তবে তালগাছটা আমার।
১৯৯১ সালের নির্বাচনে বিএনপির সামান্য ভোটের ব্যবধানে জয় আওয়ামী লীগ মেনে নিয়েছে। এ কথা বলেনি যে আমাদের জয় কারচুপি করে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে। তারা বিরোধী দলের আসনে গিয়ে বসেছে। কিন্তু ক্ষমতায় বসেই বেগম জিয়া ভোল পাল্টান। জাতির পিতার অসম্মান শুরু করেন। স্বাধীনতার আদর্শকে বিতর্কিত করে তোলেন। দলতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেন এবং নির্বাচনে কারচুপি করে জেতার নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। সংসদে বিরোধী দলের কথা বলা অসম্ভব করে তোলেন।
বিরোধী দলের সদস্যদের কেউ, এমনকি শেখ হাসিনা কথা বলতে দাঁড়ালেই প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ইশারায় স্পিকার মাইক বন্ধ করে দিতেন। একবার তো সংসদে দাঁড়িয়ে বিরোধী দলের সদস্যদের ‘চুপ বেয়াদব’ বলে অশোভন ভাষায় ধমক দিয়েছিলেন। আওয়ামী লীগ বাধ্য হয়ে সংসদ বর্জন করে এবং নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকরের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবিতে আন্দোলন গড়ে তোলে। তখন খালেদা জিয়া বলেছিলেন, ‘শিশু ও পাগল ছাড়া কেউ নিরপেক্ষ হয় না।’ এখন তিনি সেই শিশু ও পাগল নিয়েই নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের দাবি জানাচ্ছেন কি?
দেশে বিএনপির কাণ্ডকারখানাতেই নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি সফল হয়নি। বিএনপি নিযুক্ত রাষ্ট্রপতি ইয়াজউদ্দিনের আমলে এই সত্য প্রকট হয়ে ওঠে। দেশের মানুষ এই পদ্ধতি প্রত্যাখ্যান করেছে এবং সংবিধানেও এই ব্যবস্থা বাতিল করা হয়েছে। এ অবস্থায় এই ডেড ইস্যু নিয়ে আলোচনা বৈঠক কিসের? বর্তমান সরকার অতীতের বিএনপি সরকারের মতো দুর্নীতিতে কোনো রেকর্ড সৃষ্টি করেনি। হাসিনা সরকারের আমলে বিএনপি চার-চারটি সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচনে জয়ী হয়েছে। তার পরও বিএনপি নেতারা প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের অসত্য ব্যাখ্যা তৈরি করে নির্বাচনকালীন সরকারের প্রশ্নে আলোচনায় বসার আবদার তোলেন।
আসলে আলোচনা নয়, আলোচনার নামে কৌশলে বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন বিলম্বিত করার চেষ্টা। বিএনপি দেশে গণতন্ত্রের ধারাবাহিকতা অক্ষুণ্ন রাখার কাজে আন্তরিক হলে কৌশলের রাজনীতি ত্যাগ করে নির্বাচনে আসুক। নির্বাচনে কোনো ধরনের কারচুপি হলে তখন প্রতিবাদ জানাক। দেশের মানুষ ও বিশ্ববাসীর চোখ এবার বাংলাদেশের এই নির্বাচনের ব্যাপারে সদা জাগ্রত। এই চোখকে ফাঁকি দেওয়া সম্ভব নয় এবং আওয়ামী লীগ সরকার সেই ফাঁকি দিতে চাইবেও না, রংপুরের সাম্প্রতিক সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচনেও তার প্রমাণ মিলেছে।
দেশের মানুষ নির্দিষ্ট সময়ে একটি স্বচ্ছ নির্বাচন চায়। হাসিনা সরকারও সেই নির্বাচন দিতে বদ্ধপরিকর। সুতরাং অপ্রয়োজনে পানি ঘোলা না করে এই নির্বাচনে অংশ নিতে বিএনপির ভয় কিসের? আসলে তারা চাচ্ছে ২০০১ সালের তাদের পছন্দের নির্বাচনপ্রক্রিয়ার পুনরাবৃত্তি। তা আর হবে না। সাহাবুদ্দীন-লতিফুরের নেতৃত্বে গঠিত নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আসল চেহারাটা কী ছিল, দেশের মানুষ তা আজ জানে।
বিএনপি নিজের স্বার্থ ও অস্তিত্ব রক্ষার তাগিদে নির্বাচনে অংশ নেবে। এটা দর-কষাকষি ও মুখরক্ষার চেষ্টা। যতই গরম গরম কথা বলুক তারা জানে, ২০০১ সালের নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি ঘটানো আর সম্ভব নয়। জনগণ ভোট দিলে তারা গণতান্ত্রিক পন্থায় ক্ষমতায় আসবে। এতে কারো আপত্তি নেই। জনগণ না চাইলে তারা সংসদে শক্তিশালী বিরোধী দল গঠন করতে পারবে। সেই দরজা তো খোলা থাকবেই।
আমার লেখার পাঠকরা একটু অপেক্ষা করুন। নির্বাচনে যোগ দেওয়ার প্রশ্নে বিএনপি এখন সুর নামিয়েছে। দেখবেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত হলে তারা ঠিকই নির্বাচনে অংশ নেবে। নইলে দেশের রাজনীতিতে বিএনপিকে আইয়ুবের কনভেনশন লীগ ও ভাসানী ন্যাপের পরিণতি বরণ করতে হবে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
আতিক'ই আওয়ামী লীগ প্রার্থী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46341 Hazarika46341Pratidin Wed, 17 Jan 2018 22:19:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ ঢাকা উত্তরের মেয়র পদে উপ নির্বাচনে আতিকুল ইসলামকে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার রাতে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মনোনয়ন বোর্ডের সভায় এ সিদ্ধান্ত http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516119578.jpg
আতিক'ই আওয়ামী লীগ প্রার্থী
আতিক'ই আওয়ামী লীগ প্রার্থী

স্টাফ রিপোর্টার॥ ঢাকা উত্তরের মেয়র পদে উপ নির্বাচনে আতিকুল ইসলামকে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ। মঙ্গলবার রাতে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে মনোনয়ন বোর্ডের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান। ওবায়দুল কাদের বলেন, দুইজন নারীসহ মোট আঠারোজন মনোনয়নের জন্য আবেদন করেন। এসময় নৌকার প্রার্থী বিজয়ী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি। কাদের বলেন, আমাদের কোন প্রার্থীর যোগ্যতা কম নয়। ১৮ জন থেকে একজন খুঁজে বের করা কঠিন। তিনি বলেন, মনোনয়ন বোর্ডে সবার সর্ব সম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ক্লিন ইমেজের সম্ভ্রান্ত পরিবারের একজন সন্তানকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এর আগে মনোনয়ন বোর্ডে যোগ দিতে গণভবনে নিজের গাড়ি নিয়ে প্রবেশ করেন আতিকুল ইসলাম। এসময় দলের মনোনয়ন পেলে সবাইকে নিয়ে কাজ করার কথা জানান তিনি। অন্যদিকে অনেকটাই চাঙ্গা বিএনপি থেকে মনোনয়ন পাওয়া মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। মনোনয়ন বোর্ডের সভায় অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে ছিলেন- তৈরি পোশাক শিল্প ব্যবসায়ীদের সংগঠন বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক রাসেল আশেকী, আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি ডা. এইচ বি এম ইকবাল, সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী আবুল হোসেনের মেয়ে জামাই ব্যবসায়ী আবেদ মনসুর। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সাবেক সদস্য অ্যাডভোকেট মমতাজ হাসান মেহেদী, মেজর (অব.) ইয়াদ আল ফকির, তেজগাঁও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম হাসান, যুবলীগের সাবেক নেতা আবুল বাশার, তাঁতী লীগ ঢাকা মহানগর উত্তরের প্রধান উপদেষ্টা আদম তমিজি হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক জুবায়ের আলম, ব্যবসায়ী হেলালউদ্দিন হেলাল, মনিপুরী স্কুলের প্রিন্সিপাল ফরহাদ হোসেন ও অধ্যক্ষ শাহ আলম।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
নিজামের মামলার জন্য অতিদ্রুত নতুন বেঞ্চ গঠিত হয়েছে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46340 Hazarika46340Pratidin Wed, 17 Jan 2018 22:19:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ গত সোমবার নিজামের মামলা চালাতে অপারগতা প্রকাশ করেছিল একজন বিচারপতি ।সেটি ছিল নবম বিচারপতির অপারগতা। শেষ বিচারপতি বিব্রত করার ফাইলটি প্রধান বিচারপতির কাছে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516119510.jpg
নিজামের মামলার জন্য অতিদ্রুত নতুন বেঞ্চ গঠিত হয়েছে
নিজামের মামলার জন্য অতিদ্রুত নতুন বেঞ্চ গঠিত হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার॥ গত সোমবার নিজামের মামলা চালাতে অপারগতা প্রকাশ করেছিল একজন বিচারপতি ।সেটি ছিল নবম বিচারপতির অপারগতা। শেষ বিচারপতি বিব্রত করার ফাইলটি প্রধান বিচারপতির কাছে গেলে দ্রুত তম সময়ের মধ্যে তিনি আরেকটি নতুন বেঞ্চ সোমবারেই গঠন করে দিয়েছেন। এভাবে বিব্রত বোধ করার কারনে বিচার বিভাগের ভাবমূর্তি খুন্ন হয়েছে ধারনা করেই এই সিধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।এ বেপারে নতুন বিচারপতির সঙ্গে প্রধান বিচারপতির কিছু কথা হয়েছে এমনটাই শোনা যাচ্ছে শত হতাশার মধ্যেও ফেনীর জনগন আবার উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে । আজ শুনানির দিন ধার্য হতে পারে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ফেনী সরকারী কলেজের সাবেক প্রফেসার আবদুল হক আর নেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46338 Hazarika46338Pratidin Mon, 30 Nov -0001 00:00:00 +0000 -Hazarika দাগনভূইয়া প্রতিনিধি->>ফেনী সরকারী কলেজের সাবেক প্রফেসার আবদুল(৮৫) আর নেই। মঙ্গলবার ভোরে বার্ধক্যজনিত কারনে গ্রামের বাড়ি জগতপুরে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। গতকাল বাদ http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516118424.jpeg
ফেনী সরকারী কলেজের সাবেক প্রফেসার আবদুল হক আর নেই
ফেনী সরকারী কলেজের সাবেক প্রফেসার আবদুল হক আর নেই

দাগনভূইয়া প্রতিনিধি->>
ফেনী সরকারী কলেজের সাবেক প্রফেসার আবদুল(৮৫) আর নেই। মঙ্গলবার ভোরে বার্ধক্যজনিত কারনে গ্রামের বাড়ি জগতপুরে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। গতকাল বাদ আসর দাগনভূইয়ার ফাজিলের ঘাট বাজারে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী দুই ছেলে চার মেয়েসহ অসংখ্য গ্রুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ফেনী রামপুরে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46337 Hazarika46337Pratidin Mon, 30 Nov -0001 00:00:00 +0000 -Hazarika ফেনী প্রতিনিধি॥ ফেনীতে মোরশেদ আলম পাটোয়ারী (১৬) নামে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম করেছে একই বিদ্যালয়ের কয়েক শিক্ষার্থী। সোমবার বিকেলে শহরের রামপুর এলাকার শাহীন একাডেমি http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516118393.jpeg
ফেনী রামপুরে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম
ফেনী রামপুরে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম

ফেনী প্রতিনিধি॥ ফেনীতে মোরশেদ আলম পাটোয়ারী (১৬) নামে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম করেছে একই বিদ্যালয়ের কয়েক শিক্ষার্থী। সোমবার বিকেলে শহরের রামপুর এলাকার শাহীন একাডেমি স্কুল এন্ড কলেজের সামনে এ ঘটনাটি ঘটেছে।
স্থানীয়রা জানায়, শহীন একাডেমি স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষার্থীয় অংশগ্রহণে প্রস্তুত শিক্ষার্থী মোরশেদের সাথে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কোচিং ক্লাসের সীটে বসা নিয়ে সাগর নামের অপর এক সহপাঠীর সাথে ঝগড়া হয়। এর জের ধরে সোমবার বিকেলে মোরশেদকে একা পেয়ে সাগর ও তার কয়েক সঙ্গী হামলা করে। এসময় তারা মোরশেদকে কুপিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয়রা আহত মোরশেদকে উদ্ধার করে ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ফেনী সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) অসীম কুমার সাহা জানান, আহত শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে ভর্তির পর পিঠে কয়েকটি সেলাই দেয়া হয়েছে। সে আপাতত শঙ্কামুক্ত বলেও জানান চিকিৎসক। ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. রাশেদ খান চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এঘটনায় সোমবার রাত পর্যন্ত থানায় কেউ কোন লিখিত অভিযোগ করেনি। তবে লিখিত অভিযোগ পাওয়া না গেলেও পুলিশ ওই হামলার ঘটনায় জড়িতদের আটকের জন্য পুলিশ অভিযান চালায়। তবে ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে পায়নি পুলিশ।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
গরিব কাঁদিয়ে ধনীরা রাজাপুরের রাজা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46336 Hazarika46336Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:59:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ ঝালকাঠির রাজাপুরের মঠবাড়ী ইউনিয়নের মানকি সুন্দর গ্রামে তৈরি করা হয়েছে ভূমিহীনদের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প। এই প্রকল্পের বাসিন্দাদের জন্য সরকারি অর্থায়নে নির্মাণ করা হয় http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516118364.jpg
গরিব কাঁদিয়ে ধনীরা রাজাপুরের রাজা
গরিব কাঁদিয়ে ধনীরা রাজাপুরের রাজা

স্টাফ রিপোর্টার॥ ঝালকাঠির রাজাপুরের মঠবাড়ী ইউনিয়নের মানকি সুন্দর গ্রামে তৈরি করা হয়েছে ভূমিহীনদের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প। এই প্রকল্পের বাসিন্দাদের জন্য সরকারি অর্থায়নে নির্মাণ করা হয় ২৫টি একতলা ভবন। ঘরগুলো প্রকৃত দরিদ্র ভূমিহীনদের মধ্যে বরাদ্দ না দিয়ে বিত্তবান, প্রভাবশালী ও চাকরিজীবীদের দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আবেদন করেও ঘর না পেয়ে ভূমিহীন ২০ পরিবারের পক্ষ থেকে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দ কমিটির সভাপতি রাজাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফরোজা বেগম পারুলের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, একটি চক্র ৩০ হাজার থেকে ৫৫ হাজার টাকার বিনিময়ে বিত্তবান, প্রভাবশালী ও চাকরিজীবীদের নামে ১১টি ঘর বরাদ্দ দিয়েছে। টাকা দিতে না পারায় প্রকৃত ভূমিহীন পরিবারগুলো আশ্রয়ণ প্রকল্পের সরকারি ঘর থেকে বঞ্চিত হয়েছে। জানা যায়, সম্প্রতি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর বরাদ্দের জন্য আবেদন করার আহ্বান জানায় প্রকল্পের ঘর বরাদ্দ কমিটি। এতে ৮৬টি পরিবার আবেদন করে। তাদের মধ্যে যাচাই-বাছাই করে ২৫টি পরিবারকে প্রাথমিকভাবে মনোনীত করা হয়। বাছাই করা ২৫টি পরিবারের মধ্যে ১১টি পরিবার বিত্তবান, প্রভাবশালী ও চাকরিজীবী। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় যশোর সেনানিবাসের ১২ ফিল্ড আর্টিলারির তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রায় ৬৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা ব্যয়ে এক একর ২৫ শতাংশ জমিতে পাঁচটি ব্যারাকে ২৫টি একতলা পাকা ভবন (ঘর) নির্মাণ করে। তিন কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি ঘর একটি পরিবারের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়। রয়েছে আলাদা বাথরুম ও বিশুদ্ধ পানির গভীর নলকূপ। আবেদন করেও আশ্রয়ণ প্রকল্পে ঘর না পাওয়া উপজেলার পুখুরিজানা গ্রামের মৃত কাছেম খানের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৫৮) অভিযোগ করেন, তিনি স্থানীয় মালেক হাওলাদারের বাড়ির জমিতে বাঁশ খুঁটির ভাঙা একটি খুপরি ঘরে বসবাস করছেন। বিষখালী নদীর ভাঙনে গৃহহারা এ নারী মানুষের বাড়িতে কাজ করে দুমুঠো খাবার জোগার করেন। ঘূর্ণিঝড় সিডরের সময় ত্রাণের ঘর তাঁর নামে বরাদ্দ হলেও নিজস্ব জমি না থাকায় সেই ঘর থেকেও তিনি বঞ্চিত হন। প্রভাবশালী ও বিত্তবানদের দাপটে ঘর মেলেনি মানকি সুন্দরের আশ্রয় প্রকল্পেও। অনুসন্ধানে জানা গেছে, আশ্রয়ণ প্রকল্পে ঘর বরাদ্দ পাওয়া উপজেলার মানকি গ্রামের মৃত মধু হাওলাদারের ছেলে অবিবাহিত মো. জলিলের বাড়িতে চৌচালা একটি বড় টিনের ঘর ও মাঠে দুই একর জমি থাকা সত্ত্বেও তাঁর নামে এক পরিবারের ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়। উপজেলার ডহরশংকর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের বেপারীর ছেলে মো. আহসান হাবিবের বাড়িতে দ্বিতল বিশিষ্ট টিনের বড় ঘর রয়েছে। তাঁর পুকুরে সরকারিভাবে মাছ চাষ প্রকল্প চলছে। প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে পাওয়া ১০ লাখ টাকা সোনালী ব্যাংকে জমা আছে। তিনি নিজে একটি কম্পানির গাড়ির ড্রাইভারের চাকরি করেন। এ ছাড়া দুই একর ফসলি জমি থাকা সত্ত্বেও তাঁর নামে ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়। উত্তর পুখুরিজানা গ্রামের দেলোয়ার মোল্লার স্ত্রী কমলা বেগমের বাড়িতে ত্রাণের টিনের ঘর আছে। বসতবাড়ির জমি থাকা সত্ত্বেও তাঁর নামে ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়। পুখুরিজানা গ্রামের মৃত আমির হোসেন খানের ছেলে মিজানের বাড়িতে বড় টিনের ঘর, বসতবাড়ির জমি ও ঢাকার গাজীপুরে ক্রয়কৃত পাঁচ শতাংশ জমি থাকা সত্ত্বেও তাঁর নামে ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। পুখুরিজানা গ্রামের মৃত মোফাজ্জেল হাওলাদারের ছেলে খলিলুর রহমানের ছেলের বাড়িতে ত্রাণের ঘর রয়েছে, বাড়ি ও মাঠে প্রায় এক একর জমি, সাতটি গরু আছে ও আর্থিক সচ্ছল থাকা সত্ত্বেও তাঁর নামে ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
স্কুল নয়, যেন মৌ খামার! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46335 Hazarika46335Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:59:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ স্কুলটি যেন মৌ খামার। প্রতিদিন মৌচাক দেখে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে শিক্ষার্থীরা। অসংখ্য মৌমাছি যেন তাদের সাথী হয়ে পাহারা দিচ্ছে বিদ্যালয়টি। পাশাপাশি এ অভাবনীয় http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516118331.jpg
স্কুল নয়, যেন মৌ খামার!
স্কুল নয়, যেন মৌ খামার!

স্টাফ রিপোর্টার॥ স্কুলটি যেন মৌ খামার। প্রতিদিন মৌচাক দেখে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে শিক্ষার্থীরা। অসংখ্য মৌমাছি যেন তাদের সাথী হয়ে পাহারা দিচ্ছে বিদ্যালয়টি। পাশাপাশি এ অভাবনীয় দৃশ্য দেখতে বিদ্যালয়ে আসেন আশপাশের লোকজনও।
হাজার হাজার মৌমাছির গুঞ্জনে মুখর কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার জালালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়ের তৃতীয় তলার দিকের কার্নিশ ঘিরে ছোট-বড় ২১টি মৌচাক। এ মৌচাকে হাজার হাজার মৌমাছি আনাগোনা করে প্রতিদিন। ফলে মৌমাছির গুঞ্জনে মুখর বিদ্যালয়। বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে গিয়ে দেখা যায়, উঠানের রেইনট্রি ছায়ায় খেলছে শিশু শিক্ষার্থীরা। তাদের ফাঁকফোকড় দিয়ে ভোঁ ভোঁ উড়ে যাচ্ছে মৌমাছির দল। প্রচণ্ড গতিতে যেতে গিয়ে কারও গায়ে ধাক্কা লেগে মাটিতে উল্টে পড়ছে কোনো কোনোটি। দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছে কোনো শিক্ষার্থীর গায়ে চড়ে। শিশু শিক্ষার্থীরা কেউ কেউ ঝেড়ে ফেলছে ওসব, কেউ কেউ মাড়িয়েও যাচ্ছে কোনো চিন্তা-ভাবনা বা ভ্রূক্ষেপ না করেই। তিন-চার শিক্ষার্থীকে দেখা গেল আহত মৌমাছিদের বাঁচানোর খেলায় মগ্ন। মাটি থেকে কাঠি দিয়ে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিচ্ছে আহতদের। দলছুট এক শিশু বসে গল্পে মশগুল এক মৌমাছির সঙ্গে। মৌমাছিগুলো কামড়াচ্ছে না কাউকেই। প্রধান শিক্ষক কবিরুল হক দেখালেন তার ঘরটির দেয়ালসহ আসবাবপত্রের ওপর শতাধিক মৌমাছির ওড়া-বসা। জানালেন, শ্রেণিকক্ষগুলোতেও একই অবস্থা। এ এলাকার শিশুদের কাছে স্বাভাবিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে এটি। মাছিগুলো সচরাচর কামড় দেয় না। তাই বাড়তি কোনো ব্যবস্থাও নেওয়ার প্রয়োজন হয়নি। বিদ্যালয় ভবনটি ঘুরিয়ে দেখালেন প্রধান শিক্ষক কবিরুল হক। পূর্ব-পশ্চিম লম্বা দক্ষিণমুখী ২ তলা বিদ্যালয় ভবনের সামনের দিকের কার্নিশে ৯টি, পশ্চিমের কার্নিশে ৬টি, উত্তরের কার্নিশে ৪টি এবং ভবনের সামনের রেইনট্রি গাছে ২টিসহ মোট ২১টি মৌচাক। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, বিদ্যালয়টির পূর্ব দিকে নদী, চারদিকের বিস্তীর্ণ জমিতে এ সময় সরিষার ক্ষেতে ফুল আসে। মৌ সংগ্রহ ও চাক বাঁধার নিরাপদ পরিবেশ হিসেবে এখানে অধিক মৌমাছির আগমন ঘটেছে। স্থানীয় মধু সংগ্রহকারী হামু মিয়া জানান, মৌচাকগুলো থেকে প্রতি বছর দেড়শ' থেকে ২শ' লিটার মধু সংগ্রহ করা যায়। স্থানীয় প্রভাবশালী মহল রাতের আঁধারে ভেঙে নিয়ে যায় কোনো কোনো চাক।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
রংপুর মেডিকেলে সাত দিনে দগ্ধ ১৫ রোগীর মৃত্যু http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46334 Hazarika46334Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:58:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ গত সাত দিনে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আগুনে পোড়া ১৫ জন রোগী মারা গেছেন। আরও দশজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।শুধু আগুনে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516118291.jpg
রংপুর মেডিকেলে সাত দিনে দগ্ধ ১৫ রোগীর মৃত্যু
রংপুর মেডিকেলে সাত দিনে দগ্ধ ১৫ রোগীর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার॥ গত সাত দিনে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আগুনে পোড়া ১৫ জন রোগী মারা গেছেন। আরও দশজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
শুধু আগুনে দগ্ধ হয়ে নয় শীতে এ পর্যন্ত রংপুর অঞ্চলের পাঁচ জেলায় নিউমোনিয়া, ডায়েরিয়াসহ শীতজনিত রোগে আরও ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, গড়ে প্রতিদিনই রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি হচ্ছে পাঁচজন দগ্ধ রোগী। এ পর্যন্ত হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮০ জন। এখনো ভর্তি রয়েছে ৫১ নারী শিশু ও বৃদ্ধ।
হাসপাতালে নিহতরা হলেন, রংপুর সদরের জলকর এলাকার বেলাল হোসেনের স্ত্রী আফরোজা বেগম, নীলফামারী জেলার সোনারাম কাচারি এলাকার আমজাদ হোসেনের স্ত্রী মারুফা, রংপুর সদরের আব্দুল গনির স্ত্রী মনি বেগম, ঠাকুরগাঁও জেলার আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী আঁখি, রংপুর সদরের শিশু খোরশেদ, রংপুরের পাকারমাথা এলাকার আনসার আলীর স্ত্রী সনি বেগম, তারাগঞ্জের জামিরণ বেওয়া,লালমনিরহাট জেলার পাঠগ্রাম উপজেলার রফিকুল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা বেগম, সদর এলাকার সামছুল আলমের স্ত্রী শাম্মি আখতার ও সুখি মনি, নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর এলাকার সাদেকুল ইসলামের স্ত্রী রেহেনা, জলডাকার ফয়জুল ও খায়রুন।
হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সহকারী অধ্যাপক ডা. আব্দুল হামিদ বলেন, প্রতিদিনই হাসপাতালে নতুন নতুন রোগী আসছেন। জায়গা সংকুলন হচ্ছে না। আমরা আমাদের তত্ত্বাবধানে রেখে অন্য ওয়ার্ডে চিকিৎসা দিচ্ছি।
চিকিৎসক বলেন, কোনো ব্যক্তির ৪০ ভাগ পুড়ে গেলে তাকে বাঁচানো মুশকিল। কেউ দগ্ধ হলে আক্রান্ত স্থানে ডিম বা অন্যকিছু না দিয়ে অন্তত ৩০ মিনিট ঢালতে হবে ঠান্ডা পানি। কেউ আক্রান্ত হলে আতঙ্কিত না হয়ে সরাসরি চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।
এ বিষয়ে রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কাজী হাসান আহমেদ বলেন, আমরা হাসপাতালগুলোকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছি। শীতে দরিদ্রদের চাহিদা মেটাতে আরো শীতবস্ত্র চাওয়া হয়েছে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ইন্দুরকানীতে পাবলিক হলে যুবলীগের কার্যালয় http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46333 Hazarika46333Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:57:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ ইন্দুরকানীতে পাবলিক হল দখল করে ইউনিয়ন যুবলীগের দলীয় কার্যালয়ের নামে সাইনবোর্ড টানিয়েছেন বালিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ শামিম। রোববার রাতে উপজেলা বালিপাড়া http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516118251.jpg
ইন্দুরকানীতে পাবলিক হলে যুবলীগের কার্যালয়
ইন্দুরকানীতে পাবলিক হলে যুবলীগের কার্যালয়

স্টাফ রিপোর্টার॥ ইন্দুরকানীতে পাবলিক হল দখল করে ইউনিয়ন যুবলীগের দলীয় কার্যালয়ের নামে সাইনবোর্ড টানিয়েছেন বালিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ শামিম। রোববার রাতে উপজেলা বালিপাড়া বাজারের দুই যুগ ধরে জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত পাবলিক হলটি শেখ শামিমের নেতৃত্বে যুবলীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা দখল করে। পরে ইউনিয়ন যুবলীগের সাইনবোর্ড টানিয়ে দরজায় তালা ঝুলিয়ে দেয়। এ নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানায়। বালিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সহসভাপতি ও সাবেক ইউপি সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, কথিত ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ শামিম হোসেন রোববার রাতে পাবলিক হল দখল করে যুবলীগের সাইনবোর্ড টানিয়ে দরজায় তালা ঝুলিয়ে দেয়। শিবির থেকে আসা এই শামিম দখলের কাজ করছে। অভিযুক্ত বালিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ শামিম জানান, এখানে আগে সাবেক ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন সেপাই ও সহসভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন জুয়াড়িদের
নিয়ে জুয়া খেলতেন। তাই ইউনিয়ন যুবলীগের কার্যালয় করে জুয়াড়িমুক্ত করেছি। বালিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেন বয়াতী জানান, পাবলিক হলের তালা খুলে দেওয়া হয়েছে। বালিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, পাবলিক হলে তালাদেওয়ার বিষয়ে শামিম আমার সঙ্গে আলোচনা করেনি।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46332 Hazarika46332Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:57:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে পুলিশ ও অপহরণকারীদের মধ্যে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সোলায়মান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। সোমবার মধ্যরাতে উপজেলার বাহাদুরপুর আঁখি রাইস মিল এলাকায় এ ঘটনা http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516118146.jpg
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১

স্টাফ রিপোর্টার॥ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে পুলিশ ও অপহরণকারীদের মধ্যে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সোলায়মান নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। সোমবার মধ্যরাতে উপজেলার বাহাদুরপুর আঁখি রাইস মিল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সোলায়মান তার সহযোগীদের গুলিতেই নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ দাবি করেছে। নিহত সোলায়মান ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার হেতালবুনিয়া গ্রামের আনসার আলীর ছেলে। তিনি এক শিশুকে অপহরণের পর হত্যা মামলার আসামি।
আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বদরুল আলম তালুকদার জানান, আশুগঞ্জের খড়িয়ালা গ্রামের শিশু রিফাতকে অপহরণের পর হত্যা মামলায় সোলায়মানকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে অপহরণের মূল আসামি মিজানকে ধরতে অভিযান চালানো হয়। সোমবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে বাহাদুপুর এলাকার পরিত্যক্ত আঁখি ট্রেডিং অ্যান্ড বয়লারে পুলিশের অভিযানে সোলায়মানের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এতে সোলায়মান গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, দুই রাউন্ড গুলি ও একটি চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
না.গঞ্জ রণক্ষেত্র আইভীসহ আহত ৫০ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46331 Hazarika46331Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:53:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও এমপি শামীম ওসমান সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117968.jpg
না.গঞ্জ রণক্ষেত্র আইভীসহ আহত ৫০
না.গঞ্জ রণক্ষেত্র আইভীসহ আহত ৫০

স্টাফ রিপোর্টার॥ নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও এমপি শামীম ওসমান সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষের ঘটনায় মেয়র আইভীসহ উভয় গ্রুপের প্রায় অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড গুলি ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। মিছিল থেকে গুলি করার ঘটনায় উভয় গ্রুপের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষে শহরের চাষাড়া এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। মঙ্গলবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাড়ায় দুই গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সংঘর্ষে আহত হয়েছেন- নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শরীফ উদ্দিন সবুজ, জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল কাদির, শহর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র আইভীর ছোট ভাই আলী আহম্মেদ রেজা উজ্জল, আইভীর আরেক ছোট ভাই আলী আহম্মেদ রিপন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, নিয়াজুল হক, ফটো সাংবাদিক তাপস সাহাসহ প্রায় অর্ধশতাধিক। প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার উচ্ছেদের পর হকারদের বসানোর জন্য নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান ঘোষণা দিয়েছেন। মঙ্গলবার বিকেল থেকে হকাররা ফুটপাতে বসবে এমন ঘোষণা দিয়েছিলেন এমপি শামীম ওসমান। শামীম ওসমান হকারদের যেমন বসতে বলেছেন তেমনি যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা-কর্মীদের হকারদের পাশে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী কয়েকশ নেতা-কর্মীসহ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরদের নিয়ে নগর ভবন থেকে পায়ে হেঁটে শহরের চাষাড়ার দিকে রওনা হয়। শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের জাকির সুপার মার্কেটের সামনের এসে হাজির হলে আইভীর সঙ্গে থাকা কয়েকজন লোক হকারদের সরানোর চেষ্টা করলে প্রথমে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে শামীম ওসমান সমর্থিত নেতা-কর্মী ও মেয়র আইভীর লোকজনদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। মেয়র আইভী বলেছেন, শহরের ফুটপাত মুক্ত করতে হকার উচ্ছেদ করা হয়েছে। কিন্তু এমপি শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জকে অশান্ত করতে হকারদের বসানোর জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। শামীম ওসমান কেন হকারদের উসকানি দিয়েছে এটা আমি বুঝতে পারছি না। আমি আজকে দেখতে এসেছিলাম ফুটপাতে পায়ে হেঁটে মানুষের চলতে কতটা ভালো লাগে। এমন দৃশ্য দেখতে এলে শামীম ওসমানের নির্দেশে আমার ওপর হামলা চালানো হয়।
তিনি বলেন, আমার ওপর হামলার সময় জনতা ব্যারিকেট দিয়ে আমাকে বাঁচাতে আসলো। কেন আসলো জানি না। শামীম ওসমানসহ তার লোকজন আমাকে মারতো আমি সেটি দেখার অপেক্ষায় ছিলাম। প্রশাসনের সহযোগিতায় নিরীহ মানুষের ওপর হামলা চালানো হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন মেয়র আইভী।
এদিকে, শামীম ওসমান বলেন, মেয়র আইভী নারায়ণগঞ্জ অশান্ত করার চেষ্টা করছেন। পুলিশের সামনে হকারদের লক্ষ্য করে মেয়রের লোকজন গুলি করেছে। নারায়ণগঞ্জের সাধারণ মানুষকে কেন পথে বসিয়েছে। আমরা সাধারণ মানুষের পক্ষে আছি, থাকব। মেয়রের লোকজন সাধারণ মানুষের ওপর হামলা চালিয়েছে।
নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শরফুদ্দিন বলেন, মেয়র সমর্থকদের সঙ্গে হকারদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। তবে কয়জন আহত হয়েছে জানা নেই। পরিস্থিত নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছুড়েছে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
রাজধানীতে শিক্ষার্থীসহ নিহত ৪ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46330 Hazarika46330Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:52:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় শিক্ষার্থী ও গৃহকর্মীসহ ৪ নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশগুলো ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117927.jpg
রাজধানীতে শিক্ষার্থীসহ নিহত ৪
রাজধানীতে শিক্ষার্থীসহ নিহত ৪

স্টাফ রিপোর্টার॥রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় শিক্ষার্থী ও গৃহকর্মীসহ ৪ নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশগুলো ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
লাশগুলি হলো, উত্তরা পূর্ব থানা এলাকার বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী আফরিদা তানজিল মাহি (২১), রমনা থানাধীন মগবাজারের তামান্না আক্তার বিথী (১৮) ও খিলক্ষেত থানা এলাকার মাহেনুর আক্তার মৌ (১৮) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার মৃত আব্দুল জলিলের স্ত্রী হনুফা। উত্তরা পূর্ব থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোঃ জানে আলম দুলাল গতরাত ১০টায় ইউনাইটেড হাসপাতাল থেকে আফরিদা তানজিল মাহির লাশ উদ্ধার করেন। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন, উত্তরা ৮নম্বর সেক্টর, ১২ নম্বর রোডের এ/৪ নম্বর বাসায় থাকতো। ব্রাক ইউনিভার্সিটির ইংরেজী বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্রী ছিলো সে। গত ১৪ জানুয়ারি দিবাগত রাত ২টা থেকে পরদিন বেলা ১টার মধ্যে পরিবারের সাবার অগোবরে ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাঁস দেয় মাহি। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে ইউনাইটেড হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে রমনা থানাধীন মগবাজার দিলু রোডের ৪১/এ নম্বর ৬তলা বাসা থেকে গতরাত ১টায় তামান্না আক্তার বিথীর লাশ উদ্ধার করে উপ পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল কুদ্দুস। মাদারীপুর শীবচর উপজেলার বাঁশকান্দি গ্রামের শাহজাহান মিয়ার মেয়ে বিথী।
মৃত বিথীর মামা আরিফুল ইসলাম জানান, ২বছর আগে বিথীর বিয়ে হলেও বনিবনা না হওয়ায় তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপর থেকে পরিবারের সাথে মগবাজার দিলু রোডের ওই বাসায় থাকতো সে। এরপর আবার স্থানীয় প্রভাতী উচ্চ বিদ্যা নিকেতনে ভর্তি হয় সে। সেখানকার এসএসসি ছাত্রী ছিলো সে।
১ভাই ৩ বোনের মধ্যে ২য় সে। গতকাল রাতে তার মা শিল্পী বেগম তার ছোট ভাইকে নিয়ে বাসার বাইরে যায়। ১১টার দিকে বাসায় ফিরে ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো মৃত অবস্থায় দেখতে পায়।
খিলক্ষেত নামাপাড়া চানাচুর ফ্যাক্টরি এলাকার ২২৮/৩ নম্বর টিনসেড বাসা থেকে আজ সাকাল সাড়ে ৭টার দিকে মৌ'র লাশ উদ্ধার করে এসআই মোঃ শফিকুল ইসলাম।
বরিশাল বানারীপাড়া উপজেলার আহমদাবাদ গ্রামের মিন্টু আহমেদের মেয়ে সে। স্বামী রাজমিস্ত্রি রাকিব হোসেনের সাথে নামাপাড়ার ওই বাসায় থাকতো মৌ। লেকসিটি কনকর্ড শপিংমলে কাজ করতো সে।
মৃত মৌ'র মামা মিরাজ হোসেন জানান, ২ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তারা নামাপাড়ায় থাকতো। তাদের কোন সন্তান নেই। আজ রাতে স্বামী স্ত্রী একই রুমে শুয়ে ছিলো। ভোর ৫টার দিকে স্বামী রাকিব ঘুম থেকে উঠে মৌ'কে ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় দেখতে পায়।
এছঅড়া রাজধানীর উত্তর বাড্ডার একটি বাসা থেকে হনুফা বেগম (৫৫) নামের এক গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
আজ সোমবার বেলা ১২টার দিকে উত্তর বাড্ডা সব্জির গলির চ/৫৯/বি নম্বর ৪তলা বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার মৃত আব্দুল জলিলের স্ত্রী হনুফা।
বাড্ডা থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল করিম জানান, গত ১৮/১৯ বছর ধরে উত্তর বাড্ডায় গৃহকর্তা ইয়াসিন আরাফাতের ওই বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করতো সে।
ধারণা করা হচ্ছে, গত রাতের শেষাংশে বাসার সবার অগোচরে জানলার গ্রীলের সাথে ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাঁস দেয় হনুফা। দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।
ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ যানা যাবে বলে জানান এসআই করিম।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
নন্দিত সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46329 Hazarika46329Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:51:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥‘ঐ রাত ডাকে ঐ চাঁদ ডাকে’খ্যাত নন্দিত সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই। ইন্নালিল্লাহি ওয়া....রাজিউন! মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬২ বছর। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি মরনব্যাধি http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117888.jpg
নন্দিত সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই
নন্দিত সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার॥
‘ঐ রাত ডাকে ঐ চাঁদ ডাকে’খ্যাত নন্দিত সংগীতশিল্পী শাম্মী আক্তার আর নেই। ইন্নালিল্লাহি ওয়া....রাজিউন! মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬২ বছর। দীর্ঘদিন ধরেই তিনি মরনব্যাধি ক্যান্সারে ভুগছিলেন। আজ মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারি তার শরীর হঠাৎ বেশি খারাপ হলে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। পরে তার মরদেহ শান্তিনগরে তার নিজ বাসাতেই নিয়ে যাওয়া হয়। গুণী এই শিল্পীর মৃত্যুর খবরে সংগীতাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার স্বামী সংগীতশিল্পী আকরামুল ইসলাম জানান, ‘শাম্মী আক্তার ছয় বছর ধরে ব্রেস্ট ক্যানসারে ভুগছিলেন। আজ দুপুরে বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ায় বারডেম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই বিকেল ৪টার দিকে তিনি পরপারে পাড়ি জমান। জীবনের শেষদিনগুলো অনেক কষ্ট করে গেল শাম্মী। সবার কাছে ওর বিদেহি আত্মার জন্য দোয়া প্রার্থনা করছি।’ ‘শাম্মী’ নামে পরিচিত হলেও তার আসল নাম শামীমা আক্তার। শামীমাকেই আদর করে সবাই ডাকতেন শাম্মী বলে। তার গানে হাতে খড়ি বরিশালের ওস্তাদ গৌর বাবুর কাছে। এরপর নানা সময় নানা জনের কাছে গানে শিক্ষা নিয়েছেন তিনি। ১৯৭০ সালের দিকে জীবনের প্রথম বেতারের গানে কণ্ঠ দেন তিনি। গানটি ছিল নজরুলসংগীত ‘এ কি অপরূপ রূপে মা তোমায়’।
চলচ্চিত্রের গানে শাম্মী আক্তারের যাত্রা শুরু হয়েছিলো ১৯৮০ সালে আজিজুর রহমান পরিচালিত ‘অশিক্ষিত’ চলচ্চিত্রে গান গাওয়ার মধ্য দিয়ে। ছবিতে গাজী মাজহারুল আনোয়ারের লেখা ও সত্য সাহার সুর-সংগীতে ‘আমি যেমন আছি তেমন রব বউ হবো না রে’ এবং ‘ঢাকা শহর আইসা আমার আশা পুরাইছে’ গান দুটি গেয়েই রাজকীয় অভিষেক হয় তার। এরপর চলচ্চিত্রে শাম্মী আখতার প্রায় ৩০০ গান গেয়েছেন।
জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না’ চলচ্চিত্রে ‘ভালোবাসলেই সবার সঙ্গে ঘর বাঁধা যায় না’ গানটি গাওয়ার জন্য শাম্মী আক্তার ২০১০ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।
দীর্ঘ ছয় বছর ধরেই ক্যান্সারের সঙ্গে যুদ্ধ করছিলেন তিনি। গত বছর তার চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ৫ লাখ টাকা প্রদান করা হয়েছিলো। শেষরক্ষা হলো না কিছুতেই। সংগীতাঙ্গনকে শোকের সমুদ্রে ভাসিয়ে চলে গেলেন এই গানের পাখি, আর না ফেরার দেশে।
ব্যক্তিজীবনে ১৯৭৭ সালের ২২ ফ্রেব্রুয়ারি আকরামুল ইসলামের সঙ্গে বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হন শাম্মী আক্তার। তাদের দুই সন্তান কমল ও সাজিয়া। শেষ বয়সে দুই নাতি আর্শ ও আরিবের সঙ্গেই সময় কাটতো শাম্মী আক্তারের।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
সচিবকে ঘুষের প্রস্তাব দিয়ে ব্ল্যাক লিস্টেড চায়না হারবার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46328 Hazarika46328Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:50:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবকে ঘুষের প্রস্তাব দেয়ায় চীনের প্রতিষ্ঠান চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেডকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117838.jpg
সচিবকে ঘুষের প্রস্তাব দিয়ে ব্ল্যাক লিস্টেড চায়না হারবার
সচিবকে ঘুষের প্রস্তাব দিয়ে ব্ল্যাক লিস্টেড চায়না হারবার

স্টাফ রিপোর্টার॥ সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবকে ঘুষের প্রস্তাব দেয়ায় চীনের প্রতিষ্ঠান চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেডকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। মঙ্গলবার সচিবালয়ে বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যানেট ডিক্সনের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।
ঘুষের প্রস্তাব পাওয়া ব্যক্তি হিসেবে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবের কথা জানালেও তিনি বর্তমান সচিব নজরুল ইসলাম নাকি গত অক্টোবরে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়া সচিব এম এ এন ছিদ্দিক তার স্পষ্ট করেননি মন্ত্রী।
বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ফোরামের (বিডিএফ) সংবাদ সম্মেলনে একটি চায়না কোম্পানির (চায়না হারবার) বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে বলেছিলেন ওরা ঘুষ দিয়েছিল। যে সব কর্মকর্তাকে ঘুষ দিয়েছিল তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে কিনা- জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘নিশ্চয়ই না। তারা সেক্রেটারিকে ঘুষ দিতে চেয়েছিল, সেক্রেটারি তা আমাকে জানিয়েছে।’
ঘুষের পরিমাণ কত- জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কত বলল আমি ভুলে গেছি। ৫০ লাখ বা এমন কিছু হবে।’
এ কোম্পানি কী ব্ল্যাক লিস্টেড- এমন প্রশ্নের জবাবে মুহিত বলেন, ‘অবকোর্স (অবশ্যই)।’
অন্য কোনো কাজ কি এ কোম্পানি করতে পারবে- এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘নো নো, দে ক্যান নট (তারা পারবে না)।’
অলরেডি তো কিছু কাজ তারা পেয়েছে- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সেটাও দেখা যাক কি করা যায়। নরমাল নিয়ম হল ব্ল্যাক লিস্টেট মিনস ব্ল্যাক লিস্টেড।’
চীনের প্রতিষ্ঠান কি কাজ পাওয়ার জন্য ঘুষ দিতে চেয়েছিল- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘কাজ তো হয়ে গেছে। পেয়ে গেছে তারা। এটা আমার জাস্ট মনে হয় খুশি রাখা। তারা চুরি করবে।’
ঘুষের অভিযোগ ওঠায় চায়না হারবারকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চার লেন প্রকল্পের কাজ দেয়া হয়নি বলে সোমবার বিডিএফের অনুষ্ঠানে জানিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ঢাকা উত্তরের নির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট, আজ আদেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46327 Hazarika46327Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:50:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ঘোষিত নির্বাচনী তফসিলের স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে দুটি রিট দায়ের করেছেন রাজধানীর উত্তরের দুই ভোটার। পরে রিটের প্রাথমিক শুনানি http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117791.jpg
ঢাকা উত্তরের নির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট, আজ আদেশ
ঢাকা উত্তরের নির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট, আজ আদেশ

স্টাফ রিপোর্টার॥ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ঘোষিত নির্বাচনী তফসিলের স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে দুটি রিট দায়ের করেছেন রাজধানীর উত্তরের দুই ভোটার। পরে রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে আদেশের জন্য আজ (বুধবার) দিন ধার্য করেছেন আদালত।
মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোখলেছুর রহমান।
রাজধানী উত্তরের বেড়াইদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও ভাটারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাউর রহমানের পক্ষে আজ (মঙ্গলবার) হাইকোর্টে এ রিট দুটি দায়ের করেন অ্যাডভোকেট আহসান হাবিব ভূঁইয়া।
তিনি বলেন, নির্বাচনের তফসিল স্থগিত চেয়ে রিট পৃথক দুটি দায়ের করা হয়েছে। রিটের ওপর আজ (মঙ্গলবার) শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুনানি শেষে আগামীকাল (বুধবার) আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।
আহসান হাবিব ভূঁইয়া আরও বলেন, মেয়র পদে নির্বাচনের আগে ভোটার তালিকার প্রকাশ করা হয়নি। ভোটার তালিকা প্রণয়নের আগেই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে না। এ বিষয়টিকে যুক্তি হিসেবে দেখিয়ে রিট আবেদন দায়ের করেছি।
উল্লেখ্য, ঢাকা উত্তরের মেয়র আনিসুল হক মারা যাওয়ায় উপ-নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
নিজের শিক্ষককে গলাধাক্কা দিয়ে লাঞ্চিত করলেন এমপি সাইমুম http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46326 Hazarika46326Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:49:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ কক্সবাজারের রামুতে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ারের হাতে স্থানীয় এক প্রবীণ শিক্ষক লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সুনীল কুমার শর্মা নামের ওই ব্যক্তি http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117751.jpg
নিজের শিক্ষককে গলাধাক্কা দিয়ে লাঞ্চিত করলেন এমপি সাইমুম
নিজের শিক্ষককে গলাধাক্কা দিয়ে লাঞ্চিত করলেন এমপি সাইমুম

স্টাফ রিপোর্টার॥ কক্সবাজারের রামুতে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ারের হাতে স্থানীয় এক প্রবীণ শিক্ষক লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সুনীল কুমার শর্মা নামের ওই ব্যক্তি আবার এমপি সাইমুমের নিজের শিক্ষক বলেও জানা গেছে। গত রোববার দুপুরে উপজেলার জোয়ারিয়ানালা এলাকায় জনসমক্ষে এ ঘটনা ঘটে।
সাংসদের বড় ভাই ও রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোহেল সরওয়ার গণমাধ্যমকে বলেন, সাংসদ সাইমুমের হাতে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতা এবং প্রবীণ শিক্ষক সুনীল কুমার শর্মার লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনাটি দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করেছে। সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের এক সভায় ঘটনাটি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সভায় সাংসদের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম ম-ল গণমাধ্যমকে বলেন, সাংসদের হাতে একজন প্রবীণ শিক্ষক প্রকাশ্যে লাঞ্ছিত হবেন, এটা কেউই আশা করেনি। সুনীল কুমার শর্মা রামুর চৌমুহনী এলাকার বাসিন্দা। ২০১৪ সালে তিনি স্থানীয় উত্তর কাহাতিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে অবসর নেন। তিনি ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। বর্তমানে তিনি রামুর রতœগর্ভা রিজিয়া আহমেদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন। এটি বিএনপিদলীয় সাবেক সাংসদ শহিদুজ্জামানের মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত। সুনীল কুমার শর্মা গণমাধ্যমকে বলেন, গত রোববার বেলা দেড়টার দিকে তিনি স্কুল থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে জোয়ারিয়ানালা বাজারে দেখা হয় স্থানীয় সাংসদ সাইমুম সরওয়ারের সঙ্গে। এ সময় সাংসদ বাজারের দক্ষিণ পাশে বিকেএসপির মাঠের উন্নয়নকাজের উদ্বোধন শেষে মোনাজাত করছিলেন। মোনাজাত শেষ হলে সাংসদ সাইমুম তাঁর দিকে এগিয়ে আসেন। বলেন, ‘তোর ছেলে সুজন আমার বিরুদ্ধে লেগেছে। তাকে সাবধান করে দিস। নইলে তাকে গায়েব করে ফেলব।’ তখন শিক্ষক সুনীল কুমার ‘তুই-তোকারি’ করে কথা বলার কারণ জানতে চান সাংসদের কাছে। এটাও স্মরণ করিয়ে দেন যে তিনি একসময় সাংসদের শিক্ষক ছিলেন। এ কথা বলার পর সুনীল কুমারের কাছে চলে আসেন সাংসদ। তারপর গলায় হাত দিয়ে তাঁকে ধাক্কা মারেন। এরপর পাঞ্জাবি টেনে ধরে বলেন, ‘তোর ছেলেকে সাবধান করবি। নইলে খবর আছে।’
এ ঘটনার সময় সেখানে অসংখ্য মানুষ উপস্থিত ছিলেন। তবে সাংসদ সাইমুমের হাত থেকে শিক্ষক সুনীলকে রক্ষায় ভয়ে কেউই এগিয়ে আসেননি।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
পরকীয়ার জেরে স্বামী খুন, স্ত্রীসহ তিনজনের ফাঁসি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46325 Hazarika46325Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:48:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ পাবনায় স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ তিনজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন রাজশাহীর আদালত। মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর একটার http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117717.jpg
পরকীয়ার জেরে স্বামী খুন, স্ত্রীসহ তিনজনের ফাঁসি
পরকীয়ার জেরে স্বামী খুন, স্ত্রীসহ তিনজনের ফাঁসি

স্টাফ রিপোর্টার॥ পাবনায় স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ তিনজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন রাজশাহীর আদালত। মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শিরীন কবিতা আখতার এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- পাবনা সদর থানার গোপালপুর এলাকার গোলাম মোহাম্মদের মেয়ে কুলসুম নাহার ওরফে বিউটি (৪৬), আতাইকুলা উপজেলার রাণীনগর গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে রুহুল আমিন (৪৭) এবং একই গ্রামের ইয়াসিন মোল্লার ছেলে সোলেমান আলী (৪৫)। কুলসুম নাহারের স্বামী মোশাররফ হোসেন ওরফে খোকন মৃধাকে (৫০) শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে তাদের এই দণ্ড দেওয়া হয়।
নিহত মোশাররফ পাবনা সদর থানার টেকনিক্যাল মোড়ের আশরাফ আলীর ছেলে। মোশাররফ হোসেন লালনের একজন ভক্ত ছিলেন। রায় ঘোষণার সময় শুধু বিউটি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। বাকি দুই আসামি ঘটনার পর গ্রেপ্তার হলেও পরে জামিন নিয়ে পালিয়ে গেছেন। এই তিন আসামিই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছিলেন। রায় ঘোষণার পর দণ্ডপ্রাপ্ত কুলসুম নাহারকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।
আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু জানান, টাকায় মোবাইল নম্বর পেয়ে এক ছেলে ও দুই মেয়ের মা কুলসুম নাহারের সঙ্গে কথা শুরু করেন রুহুল আমিন। পরে তাদের মধ্যে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়। একবছর ধরে চলা এ সম্পর্কের জেরে তারা অবৈধ সম্পর্কেও জড়িয়ে পড়েন।
একপর্যায়ে তারা মোশাররফ হোসেনকে তাদের ‘পথের কাঁটা’ মনে করেন। তাই তারা তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০১১ সালের ৩০ জুন রাতে কুলসুম নাহারের পরকীয়া প্রেমিক রুহুল আমিন তার বন্ধু সোলেমান আলীকে নিয়ে পাবনা শহরের কালাচাঁদপাড়া মহল্লায় মোশাররফের ভাড়া বাসায় যান।
এরপর তারা মোশাররফের ঘরে লুকিয়ে থাকেন। রাত সাড়ে ১১টার দিকে মোশাররফ হোসেন ঘরে ফিরলে তারা তিনজন মিলে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। এরপর গুম করতে লাশ একটি বস্তার ভেতর ঢোকানো হয়। কিন্তু এরই মধ্যে প্রতিবেশীরা বিষয়টি টের পেয়ে যান। তখন রুহুল আমিন ও সোলেমান আলী পালিয়ে যান।
এরপর ওই রাতেই পাবনা সদর থানা পুলিশ গিয়ে মোশাররফের বাড়ি থেকে তার বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে। এ সময় তার স্ত্রী কুলসুম নাহারকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ নিয়ে পরদিন থানায় হত্যা মামলা দায়ের হয়। এ মামলার বিচারকাজ চলাকালে মোট ১৫ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।
আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু জানান, আসামি কুলসুম নাহার একমাসের মধ্যে এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারবেন। তার পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেছেন আইনজীবী মাহমুদুর রহমান রুমন।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
রোহিঙ্গাদের ফেরত নিয়ে উদ্বিগ্ন ব্রিটেন http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46324 Hazarika46324Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:48:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ রাহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ এমপিরা। কারণ তারা মনে করেন, এখনো দেশটিতে সেনাবাহিনীর ধর্ষণ আর যৌন সহিংসতা অব্যাহত থাকায় http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117684.jpg
রোহিঙ্গাদের ফেরত নিয়ে উদ্বিগ্ন ব্রিটেন
রোহিঙ্গাদের ফেরত নিয়ে উদ্বিগ্ন ব্রিটেন

স্টাফ রিপোর্টার॥ রাহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ এমপিরা। কারণ তারা মনে করেন, এখনো দেশটিতে সেনাবাহিনীর ধর্ষণ আর যৌন সহিংসতা অব্যাহত থাকায় রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি হয়নি। ব্রিটিশ কমন্স ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট কমিটি বলছে, এটা পরিষ্কার যে, বার্মার (মিয়ানমার) সেনাবাহিনী ধর্ষণ আর যৌন সহিংসতাকে যুদ্ধের একটি অস্ত্রের মতো ব্যবহার করছে। রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে বাংলাদেশ দ্রুত পদক্ষেপ নিচ্ছে বলেও তারা মনে করছেন। রাষ্ট্রহীন রোহিঙ্গারা দীর্ঘদিন ধরে মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। দেশটিতে সাম্প্রতিক সহিংসতা শুরু হওয়ার পর সাড়ে ৬ লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। যাকে জাতিগত নির্মূল অভিযান বলে বর্ণনা করেছে জাতিসংঘ এবং যুক্তরাষ্ট্র। যদিও মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর দাবি, তারা শুধুমাত্র রোহিঙ্গা জঙ্গিদের বিরুদ্ধেই অভিযান চালাচ্ছে, সাধারণ মানুষজনের বিরুদ্ধে নয়। সাম্প্রতিক একটি প্রতিবেদনে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটি বলছে, সেখানে বিশাল মানবিক বিপর্যয়ের চিত্র বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘বার্মার কর্মকাণ্ড লাখ লাখ মানুষের জন্য মানবিক বিপর্যয় নিয়ে এসেছে। বিশ্বকে ত্রাণ সহায়তা হিসাবে প্রতিবছর হাজার কোটি টাকার ব্যয় তৈরি করেছে। কিন্তু এই ঘটনার দীর্ঘমেয়াদি রাজনৈতিক প্রভাব রয়েছে।উগ্রপন্থী কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করার জন্য ওই এলাকা বারুদের একটি স্তূপ হয়ে আছে। কমিটি বলছে, যদিও বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের প্রথাগত নেতৃত্ব ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। কিন্তু রোহিঙ্গা ফেরতের ব্যাপারে তাদের মতামতের অভাবের বিষয়টি আমাদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। বার্মায় বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা বা অন্য সংখ্যালঘুদের ফেরতের ব্যাপারে অতীত অভিজ্ঞতা আস্থাজনক নয়। যে ১ লাখ রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানোর কথা বলা হয়েছে, তারা কি স্বেচ্ছায় যাবেন বা তারা কোথায় যাবেন, তাদের সুরক্ষার কি হবে, এসব বিষয় এখনো পরিষ্কার নয় বলে ব্রিটিশ এমপিরা মনে করছেন। এটাই তাদের সবচেয়ে বেশি উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। রোহিঙ্গারা যাতে নিজেদের জীবনযাত্রা গড়ে তুলতে পারে আর স্বনির্ভর হয়ে উঠতে পারে, সে জন্য দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা দরকার বলে ব্রিটিশ এই কমিটি পরামর্শ দিয়েছে। রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোয় শিশুদের মধ্যে ডিপথেরিয়া ছড?িয়ে পড?ায় ব্রিটিশ চিকিৎসকদের একটি টিম এসেছে। এর মধ্যেই টিমটি এসে ক্যাম্পগুলোয় কাজ শুরু করেছেন। বাংলাদেশ সরকারের রোহিঙ্গাদের মাঝে টিকা কর্মসূচীতে দুই মিলিয়ন পাউন্ড সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাজ্য।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
নির্বাচনী বছরে অরাজক পরিস্থিতির আশঙ্কা ! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46323 Hazarika46323Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:47:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ বাংলাদেশে নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গন সহিংস হয়ে ওঠার ইতিহাস নতুন কিছু নয়। বিগত কয়েকটি জাতীয় নির্বাচনের আগেও বাংলাদেশে রাজনৈতিক সংকট সৃষ্টি হয়েছে। সর্বশেষ http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117645.jpg
নির্বাচনী বছরে অরাজক পরিস্থিতির আশঙ্কা !
নির্বাচনী বছরে অরাজক পরিস্থিতির আশঙ্কা !

স্টাফ রিপোর্টার॥ বাংলাদেশে নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গন সহিংস হয়ে ওঠার ইতিহাস নতুন কিছু নয়। বিগত কয়েকটি জাতীয় নির্বাচনের আগেও বাংলাদেশে রাজনৈতিক সংকট সৃষ্টি হয়েছে। সর্বশেষ ৫ই জানুয়ারি নির্বাচন বয়কট এবং প্রতিহত করতে বিএনপির আন্দোলনে ব্যাপক সহিংসতা হয়। বিএনপি বিহীন বিতর্কিত ৫ই জানুয়ারি নির্বাচনে গঠিত সরকারের শেষ বছরে এসে প্রধানমন্ত্রী নিজেই জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে নির্বাচনী এ বছরে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন। শেখ হাসিনার বক্তব্যে, "কোনো কোনো মহল আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির অপচেষ্টা করতে পারে। আপনাদের এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। জনগণ অশান্তি চান না। নির্বাচন বয়কট করে আন্দোলনের নামে জনগণের জানমালের ক্ষতি করবেন- এটা আর এ দেশের জনগণ মনে নিবেন না।" বিএনপি মনে করছে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে কোনো সমঝোতার ইঙ্গিত নেই। নেতারাও বলে আসছেন আরেকটি ৫ই জানুয়ারির মতো নির্বাচন তারা হতে দেবেন না।
বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, "এই সহিংসতা বা আগুন সন্ত্রাস বা অন্য ঘটনাগুলো যেগুলো বলা হয়, সেগুলোকে রাজনীতি থেকে বিচ্ছিন্ন করে আনতে হবে। রাজনীতিকে আজকে গণতান্ত্রিক ধারায় প্রবাহিত করতে হবে। এবং সেটা করার জন্য বিএনপি একক নয় তার জন্য একটা জাতীয় ঐক্য প্রয়োজন। যে জাতীয় ঐক্যে সরকারকেও ভূমিকা রাখতে হবে।"
এদিকে ৫ই জানুয়ারি নির্বাচনের আগে পরে ঘটে যাওয়া সহিংসতা ভাঙচুরকে ক্ষমতাসীন দল প্রতিনিয়ত বিএনপির বিরুদ্ধে প্রচারণা হিসেবে ব্যবহার করে আসছে।
এখন আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারকরা কোনো সংকট সৃষ্টি না হলে বিএনপির সঙ্গে আলোচনা বা সমঝোতার কোনো প্রয়োজন মনে করছেন না।
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বলেন, রাজনৈতিক সংকট হতেই পারে কিন্তু সেটি মোকাবেলায় তারা রাজনৈতিকভাবে প্রস্তুত হচ্ছেন।
"আইন শৃঙ্খলা বাহিনী তারা সুসংগঠিত, সুশৃঙ্খল এবং তাদের সক্ষমতাও অনেক বেশি এখন। তার সাথে আমরা বড? রাজনৈতিক দল হিসেবে আমরা রাজনৈতিকভাবেই এগুলো মোকাবেলা করবো। আমার দৃঢ? বিশ্বাস তারা যতই হুমকি দিক তারা কোনো অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে পারবে না। দেশে নির্বাচন অবশ্যই হবে"।
বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে বিশ্লেষকরা বলছেন যে কোনো সংকট এড?াতে প্রধান দুটি রাজনৈতিক দলকেই ভূমিকা রাখতে হবে। রাজনৈতিক বিশ্লেষক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম মনে করেন এখনো সময় আছে এবং সংঘাত এড?াতে এখন সরকারের দায?িত্বই বেশি।
"২০১৪ সালের অভিজ্ঞতা আমাদের খুবই তিক্ত। এতগুলি মানুষ প্রাণ হারালো। একটা বাসের মধ্যে ২৯ জন মানুষ মারা গেল। কত মানুষের প্রাণ নষ্ট হলো। এটা কি আসলে উচিৎ? একটা নির্বাচনী পরিবেশ তৈরির জন্য একটা শান্তিপূর্ণ অবস্থান আমাদের দরকার।"
প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে নির্বাচনী বছরে অরাজকতার আশঙ্কা প্রসঙ্গে রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী বলেন, "একটা সুষ্ঠু নির্বাচন করার দায?িত্ব কিন্তু সরকারের ওপরই বর্তায়। সুতরাং সেই সরকারের প্রধান হিসেবে উনি (প্রধানমন্ত্রী) চিন্তা করতে পারেন যে, এই অরাজকতা ঠেকাতে সরকারের কী করা উচিৎ? এবং একটা সমঝোতায় পৌঁছানোর একটা চেষ্টা উনি করতে পারেন বলে আমি মনে করি। সেটা দেশের জন্য উপকার হবে।"
এদিকে নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ বলছে জ্বালাও পোড?াও হলে জনগণ মানবে না আর বিএনপিও বলছে জনগণ বিতর্কিত নির্বাচন মানবে না। কিন্তু সাধারণ মানুষ কোনোভাবেই চাননা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশে কোনো সংঘাত বা সহিংসতা হোক। সূত্র: বিবিসি

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
সাত দিনের মধ্যে রোগী-চিকিৎসক সুরক্ষা আইনের নির্দেশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46322 Hazarika46322Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:46:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ রোগী ও চিকিৎসকদের সুরক্ষার জন্য আইনের খসড়া চূড়ান্ত করতে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117579.jpg
সাত দিনের মধ্যে রোগী-চিকিৎসক সুরক্ষা আইনের নির্দেশ
সাত দিনের মধ্যে রোগী-চিকিৎসক সুরক্ষা আইনের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার॥ রোগী ও চিকিৎসকদের সুরক্ষার জন্য আইনের খসড়া চূড়ান্ত করতে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। আগামী সাত দিনের মধ্যে আইনটি চূড়ান্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্যসেবা আইন প্রণয়ন-সংক্রান্ত সভায় সভাপতিত্বকালে তিনি এ নির্দেশ দেন। কমিটিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, যুগ্মসচিবসহ বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন এবং স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের একজন করে প্রতিনিধি থাকবেন। সভায় মোহাম্মদ নাসিম বলেন, হাসপাতালে রোগী এবং চিকিৎসকদের সুরক্ষার লক্ষ্যে আইন প্রয়োজন। মন্ত্রিসভা বৈঠকে উত্থাপনের জন্য আইনটি দ্রুত প্রস্তুত করার নির্দেশ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। সভায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য অধিদফতরে মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বিএমএ মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হকসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
খালেদার পক্ষে যুক্তি শেষ, সম্মানজনক খালাস দাবি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46321 Hazarika46321Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:45:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥১১ কার্যদিবস যুক্তি উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে বক্তব্য শেষ হলো। পঞ্চম আইনজীবী হিসেবে যুক্তি উপস্থাপনের শেষ http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117547.jpg
খালেদার পক্ষে যুক্তি শেষ, সম্মানজনক খালাস দাবি
খালেদার পক্ষে যুক্তি শেষ, সম্মানজনক খালাস দাবি

স্টাফ রিপোর্টার॥
১১ কার্যদিবস যুক্তি উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে বক্তব্য শেষ হলো। পঞ্চম আইনজীবী হিসেবে যুক্তি উপস্থাপনের শেষ পর্যায়ে বিএনপি নেতা মুওদুদ আহমদ আশা করছেন, এই মামলায় তার মক্কেল ‘সম্মানজনক খালাম’ পাবেন। এর আগে খালেদা জিয়ার পক্ষে পুরান ঢাকার বিশেষ জজ আখতারুজ্জামানের আদালতে যুক্তি উপস্থাপন করেন চার জন আইনজীবী। আজ মঙ্গলবার সবশেষ আইনজীবী হিসেবে যুক্তি দেন মওদুদ।
সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলা করা হয়। খালেদা জিয়া, তার ছেলে তারেক রহমানসহ মোট ছয়জনকে আসামি করা হয় এতে। গত ১৯ ডিসেম্বর এই মামলায় যুক্তি উপস্থাপন করে দুদকের আইনজীবী খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দাবি করেন।
এরপর আদালত খালেদা জিয়াকে তিন কার্যদিবসে যুক্তি উপস্থাপন শেষ করার নির্দেশ দেয়। তবে বিএনপি নেত্রীর আইনজীবীরা যুক্তি উপস্থাপন শেষ করতে না পারায় সময় বাড়ানো হয়। আজ ১১তম দিনে যুক্তি উপস্থাপন করছেন মওদুদ আহমদ। এর আগে যুক্তি উপস্থাপন করেন রেজ্জাক খান, খন্দকার মাহবুব হোসেন, এ জে মোহাম্মদ আলী ও জ?মিরউদ্দিন সরকার।
মওদুদ বলেন, ‘এই মামলার কোনো প্রাইমারি নথি নাই। কোনো সাক্ষী প্রমাণও নাই। মাননীয় আদালত, আপনি সম্মানজনকভাবে ম্যাডাম খালেদা জিয়াকে খালাস দেবেন।’
বিশেষ জজ আদালতে চলা মামলাটি গোপন বিচারের মতো বলেও দাবি করেন মওদুদ। বলেন, ‘এটা কোনো পাবলিক কোর্ট না, এখানে কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হয় না, আইনজীবীদের আসতে দেয়া হয় না, সাধারণ জনগণকে আসতে দেয়া হয় না।’
‘এই কোর্টটা করা হয়েছিল বিশেষ একটা অকেশনে (পিলখানা হত্যা মামলা)। কিন্তু এখানে খালেদা জিয়ার মামলাটা আনা হয়েছে।’
এই মামলায় খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য আসামিদের পক্ষে আরও দুই কার্যদিবস যুক্তি উপস্থাপন করবেন তাদের আইনজীবীরা। এই দুই দিন আদালতে খালেদা জিয়ার হাজির না হওয়ার পক্ষে দুটি আবেদন করেছিলেন তার আইনজীবীরা। কিন্তু সে আবেদন নাকচ করেন বিচারক।
একই সঙ্গে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় স্থায়ী জামিনের দুটি আবেদনও ফিরিয়ে দেন বিচারক।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
চাঁদপুরে পিকআপ-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৩ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46320 Hazarika46320Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:45:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর পাঁচানি এলাকায় পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষে অটোরিকশার তিন যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অটোচালক মো. নুরুল হক। মঙ্গলবার সকাল http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117491.jpg
চাঁদপুরে পিকআপ-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৩
চাঁদপুরে পিকআপ-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৩

স্টাফ রিপোর্টার॥
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর পাঁচানি এলাকায় পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে সংঘর্ষে অটোরিকশার তিন যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অটোচালক মো. নুরুল হক। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে পাঁচানি সবুর মিয়ার দোকানের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানান, যাত্রী নিয়ে একটি অটোরিকশা চৌরাস্তা বাজার থেকে চাঁদপুরের উদ্দেশে যাচ্ছিল। মোহনপুরের পাঁচানি এলাকায় আসার পর বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে যানটির সংঘর্ষ হয়। এতে অটোরিকশাটি উল্টে রাস্তার পাশে পড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই যানটির তিন যাত্রী নিহত হয়।
তারা হলেন মো. মফিজুল ইসলাম (৪৫), অনিক সরকার (২৫) এবং মো. আলমগীর (৫০)। আহত হয় অটোচালক নুরুল হক। মতলব উত্তর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শোভল জানান, দুর্ঘটনার পরপরই পিকআপ চালক পালিয়ে যায়। পুলিশ মরদেহ তিনটি উদ্ধার করেছে এবং পিকআপ ভ্যানটি আটক করেছে। আহত সিএনজি চালককে মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ভ্রাম্যমাণ আদালত নিয়ে আপিলের অনুমতি পেল সরকার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46319 Hazarika46319Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:44:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ঘোষণার রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা তিনটি লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে করা আবেদন) গ্রহণ করেছেন আপিল http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516117450.jpg
ভ্রাম্যমাণ আদালত নিয়ে আপিলের অনুমতি পেল সরকার
ভ্রাম্যমাণ আদালত নিয়ে আপিলের অনুমতি পেল সরকার

স্টাফ রিপোর্টার॥
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ঘোষণার রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা তিনটি লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে করা আবেদন) গ্রহণ করেছেন আপিল বিভাগ। আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি এসব আপিলের ওপর শুনানির জন্য দিনও ধার্য করা হয়েছে। মঙ্গলবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্?হাব মিঞার নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু। রিট আবেদনকারীদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী হাসান এম এস আজীম।
পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু ও আইনজীবী হাসান এম এস আজীম বলেন, আজ আদালত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অবৈধ করে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে সরকার পক্ষের তিনটি লিভ টু আপিল মঞ্জুর করে আপিল শুনানির জন্য ১৩ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন। এসব আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত হাইকোর্টের রায় স্থগিত থাকবে বলে আদেশ দেন আপিল বিভাগ।
এর ফলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত আপিল নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত চলবে। এছাড়া তিন সপ্তাহের মধ্যে আপিলের সারসংক্ষেপ জমা দিতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
এর আগে গত বছরের ১১জুন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা সংক্রান্ত ২০০৯ সালের আইনের ১৪টি ধারাও উপধারা অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এই আইনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ঘোষণাও করা হয়।
বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি আশিষ রঞ্জন দাসের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করেন।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
আশ্বাসে অনশন ভাঙলেন এবতেদায়ি শিক্ষকরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46316 Hazarika46316Pratidin Wed, 17 Jan 2018 21:18:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ কারিগরি শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর হোসেনের আশ্বাসের ভিত্তিতে অনশন ভেঙেছেন বাংলাদেশ এবতেদায়ি মাদরাসার শিক্ষকরা। মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনশনরত শিক্ষকদের অনশন ভাঙান http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/16/1516115881.jpg
আশ্বাসে অনশন ভাঙলেন এবতেদায়ি শিক্ষকরা
আশ্বাসে অনশন ভাঙলেন এবতেদায়ি শিক্ষকরা

স্টাফ রিপোর্টার॥ কারিগরি শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর হোসেনের আশ্বাসের ভিত্তিতে অনশন ভেঙেছেন বাংলাদেশ এবতেদায়ি মাদরাসার শিক্ষকরা। মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনশনরত শিক্ষকদের অনশন ভাঙান আলমগীর হোসেন। বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি কাজী রুহুল আমিন চৌধুরীবিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গত ১ জানুয়ারি থেকে জাতীয়করণের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নেয় ইবতেদায়ি শিক্ষকরা। অবস্থান নেয়ার আটদিন পর তারা আমরণ অনশন কর্মসূচি গ্রহণ করেন। টানা আট দিনের আন্দোলনের পরে সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বাস পেয়ে অনশন ভাঙলেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা। এর আগে রবিবার শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে তিন দফা বৈঠকে বসলেও তার ‘আশ্বাসে’ সাড়া দেননি ইবতেদায়ি শিক্ষকরা। প্রধানমন্ত্রী বা অর্থমন্ত্রী কাছ থেকে জাতীয়করণের ‘স্পষ্ট ঘোষণার’ অপেক্ষায় ছিল আন্দোলনকারী শিক্ষকরা। শিক্ষকদের অনশন স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির সভাপতি কাজী রুহুল আমিন চৌধুরীবলেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা সচিব মো. আলমগীর আমাদের ধাপে ধাপে আমাদের দাবিগুলো মেনে নেয়ার ব্যাপারে আশ্বস্ত করেছেন। এই আশ্বাসে ভিত্তিতেই মঙ্গলবার সোয়া দুইটার দিকে আমরা অনশন ভঙ্গ করলাম। এই আট দিনে অনশনে প্রায় ১৯১ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পরে। এখনও কয়েক জন শিক্ষক হাসপাতালে রয়েছে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পেয়েছে গহীন বালুচর http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46308 Hazarika46308Pratidin Tue, 16 Jan 2018 18:20:56 +0000 -Hazarika গত বছরের শেষ ছবি হিসেবে মুক্তি পেয়েছে গহীন বালুচর। দেশ ছেড়ে ছবিটি এবার যাচ্ছে দেশের বাইরে। ১৯ জানুয়ারি ছবিটি মুক্তি পাবে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে। এরপর http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516105346.jpg
কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পেয়েছে গহীন বালুচর
কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পেয়েছে গহীন বালুচর

গত বছরের শেষ ছবি হিসেবে মুক্তি পেয়েছে গহীন বালুচর। দেশ ছেড়ে ছবিটি এবার যাচ্ছে দেশের বাইরে। ১৯ জানুয়ারি ছবিটি মুক্তি পাবে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে। এরপর এ মাসের শেষ দিকে পাড়ি দেবে অস্ট্রেলিয়ায়। ছবিটির পরিচালক বদরুল আনাম সৌদ বলেন, কানাডার চারটি ও যুক্তরাষ্ট্রের ছয়টি অঙ্গরাজ্যের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে ছবিটি। আর অস্ট্রেলিয়ায়ও ছয়টি অঙ্গরাজ্যে মুক্তি পাবে।

দেশের বাইরে মুক্তি পাওয়া প্রসঙ্গে পরিচালক বলেন, ‘প্রবাসীদের কাছে আমাদের ছবি যাচ্ছে, এটা ভেবেই ভালো লাগছে। তাঁরা একটি পরিপূর্ণ দেশের ছবি দেখতে পারবেন। আমার বিশ্বাস, তাঁদেরও ভালো লাগবে।’

পরিচালক জানালেন, এখন রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্স ও যমুনা ব্লকবাস্টার সিনেমাসে চলছে ছবিটি।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ঝুঁকি নিয়েই শুটিং করছেন সালমান http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46307 Hazarika46307Pratidin Tue, 16 Jan 2018 18:12:55 +0000 -Hazarika বলিউড অভিনেতা সালমান খান। কয়েকদিন আগে যোধপুরে কৃষ্ণকায় হরিণ হত্যা মামলার হাজিরা দিতে গিয়ে এক গ্যাংস্টারের কাছ থেকে প্রাণনাশের হুমকি পান তিনি। এরপর সম্প্রতি তার http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516105079.jpg
ঝুঁকি নিয়েই শুটিং করছেন সালমান
ঝুঁকি নিয়েই শুটিং করছেন সালমান

বলিউড অভিনেতা সালমান খান। কয়েকদিন আগে যোধপুরে কৃষ্ণকায় হরিণ হত্যা মামলার হাজিরা দিতে গিয়ে এক গ্যাংস্টারের কাছ থেকে প্রাণনাশের হুমকি পান তিনি। এরপর সম্প্রতি তার শুটিং সেটে প্রবেশ করে কয়েকজন বন্ধুকধারী। বন্ধ হয়ে যায় রেস-থ্রি’র শুটিং। এরপর বাড়িয়ে দেয়া হয় সালমানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

তবে প্রাণনাশের হুমকি সত্বেও ঝুঁকি নিয়ে শুটিং করছেন সালমান। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে রেস-থ্রি সিনেমার টাইটেল সংয়ের দৃশ্যায়নে অংশ নিয়েছেন এ অভিনেতা। পাঁচদিন চলবে এই গানের শুটিং। এতে আরো অংশ নিচ্ছেন জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ। এ ছাড়া এ সময় শুটিং সেটে উপস্থিত ছিলেন-অনিল কাপুর, ববি দেওল, ডেইজি, সাকিব সেলিম। ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে একটি সূত্র সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘সালমান গত সপ্তাহে সহশিল্পী ও পরিচালক রেমো ডিসুজার সঙ্গে রিহার্সেল করেছেন। যদিও তিনি তার বিগ বস রিয়েলিটি শোয়ের ফাইনাল ও অন্যান্য কাজের মধ্যে খুব অল্প সময় দিতে পেরেছেন। তবে সঠিক সময়েই গানের শুটিং শুরু হচ্ছে। গানের জন্য একটি বিশাল সেট তৈরি করা হয়েছে। আগামী মাসে শুটিং ইউনিট ব্যাংকক, দুবাই ও আবুধাবিতে শুটিং করবে। এরপর তারা মুম্বাইয়ে শুটিংয়ের মধ্য দিয়ে মার্চে সিনেমার কাজ শেষ করতে চাইছেন।’

সম্প্রতি মুম্বাইয়ের ফিল্ম সিটিতে রেস-থ্রি সিনেমার শুটিং করছিলেন সালমান খান। হঠাৎ করেই বেশ কিছু পুলিশ তাড়াহুড়ো করে শুটিং সেটে প্রবেশ করে এবং জানায়, কয়েকজন বন্ধুকধারী সেখানে প্রবেশ করেছে। এরপর সালমান নিরাপত্তার জন্য দ্রুত তার মুম্বাইয়ের বান্দ্রার বাড়িতে চলে যান। এ ছাড়া পুলিশ জানায়, একদল দুষ্কৃতিকারী শুটিং সেটের পাশে হট্টগোলের চেষ্টা করছে। এ কারণে এই অভিনেতাকে বাড়তি নিরাপত্তা দেয়া হয়।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আখতার আর নেই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46306 Hazarika46306Pratidin Tue, 16 Jan 2018 18:07:54 +0000 -Hazarika বরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আখতার মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।রাজধানীর শান্তিনগরের নিজ বাসায় মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে হঠাৎ তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516104599.jpg
সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আখতার আর নেই
সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আখতার আর নেই

বরেণ্য সঙ্গীতশিল্পী শাম্মী আখতার মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।রাজধানীর শান্তিনগরের নিজ বাসায় মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে হঠাৎ তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেসময় হাসপাতালে নেয়ার পথে শাম্মী আখতার শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।বিগত পাঁচ বছর ধরে স্তন ক্যানসারে ভুগছিলেন শাম্মী। রাজধানীর ধানমন্ডির একটি হাসপাতালে তিনি দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিছুদিন আগে সেখান থেকে তিনি বাসায় ফেরেন।শাম্মী আখতারের গানে হাতে খড়ি বরিশালের ওস্তাদ গৌর বাবুর কাছে। এরপর নানান সময়ে নানান জনের কাছে গানের তালিম নেন তিনি। চলচ্চিত্রের গানে তার যাত্রা শুরু আজিজুর রহমান পরিচালিত ‘অশিক্ষিত’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে।‘ঢাকা শহর আইসা আমার আশা ফুরাইছে’ ও ‘আমি যেমন আছি তেমন রব, বউ হব না রে’সহ অসংখ্য কালজয়ী গানের শিল্পী তিনি। শাম্মী আখতার চলচ্চিত্র প্রায় তিনশোর মতো গানে কণ্ঠ দিয়েছেন।১৯৭৭ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি শাম্মী আখতার আকরামুল ইসলামের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের দুই সন্তান কমল ও সাজিয়া।শাম্মী আখতার ২০১০ সালে জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না’ চলচ্চিত্রে ‘ভালোবাসলেই সবার সাথে ঘর বাধা যায় না’ গানটির জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ফুটবলারকে লাথি মেরে বরখাস্ত রেফারি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46305 Hazarika46305Pratidin Tue, 16 Jan 2018 18:03:49 +0000 -Hazarika নঁতের বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পেয়েছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই। তবে ম্যাচ শেষে ফলাফল ছাপিয়ে বেশি আলোচিত হয়েছে রেফারি ও কার্লোসের ঘটনা। ম্যাচের শেষ দিকে অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516104319.jpg
ফুটবলারকে লাথি মেরে বরখাস্ত রেফারি
ফুটবলারকে লাথি মেরে বরখাস্ত রেফারি

নঁতের বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পেয়েছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই। তবে ম্যাচ শেষে ফলাফল ছাপিয়ে বেশি আলোচিত হয়েছে রেফারি ও কার্লোসের ঘটনা। ম্যাচের শেষ দিকে অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে নঁতের ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে পড়ে যান রেফারি। রেফারি মাঠে বসে থাকা অবস্থাতেই প্রথমে কার্লোসকে লাথি মারেন। পরবর্তী সময়ে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেন!পরবর্তীতে এই ঘটনা ফরাসি লিগ কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে সাময়িকভাবে টনি শ্যাপরন নামের এই রেফারি বরখাস্ত করা হয়। চলতি লিগ ওয়ানে পরবর্তী শুনানি পর্যন্ত আর ম্যাচ খেলাতে পারবেন না তিনি। ম্যাচ শেষে যদিও ব্যাপারটি অস্বীকার করেছেন এই ফরাসি রেফারি। তার মতে, মাঠের শিশিরে পা পিছলে কার্লোসের গায়ে লেগেছে। ফরাসি রেফারির এই কথা যে পুরো মিথ্যা তা ম্যাচের পরে একটি ভিডিও রিপ্লেতে ধরা পড়ে। অবশেষে নিজের ‘‌কুৎসিত’‌ আচরণের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন শ্যাপরন। তিনি বলেছেন, ‘সাময়িক ব্যথার চোটে রেগে ওই কাজ করেছি।’‌

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
পাকিস্তানের টানা চতুর্থ হার http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46304 Hazarika46304Pratidin Tue, 16 Jan 2018 17:58:28 +0000 -Hazarika নিউজিল্যান্ড সফরে হেরেই চলেছে পাকিস্তান। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের ব্যাটিং তাণ্ডবে সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড।পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম চার ওয়ানডেতেই হারল পাকিস্তান। http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516103981.jpg
পাকিস্তানের টানা চতুর্থ হার
পাকিস্তানের টানা চতুর্থ হার

নিউজিল্যান্ড সফরে হেরেই চলেছে পাকিস্তান। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের ব্যাটিং তাণ্ডবে সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড।

পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম চার ওয়ানডেতেই হারল পাকিস্তান। আগামী ১৯ জানুয়ারি ওয়েলিংটনে শেষ ম্যাচে সফরকারীদের সামনে হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর চ্যালেঞ্জ।

হ্যামিল্টনে মঙ্গলবার নিউজিল্যান্ডের জয়ে হেনরি নিকোলসের অবদানও কম নয়। তবে ডি গ্র্যান্ডহোমের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে ঢাকা পড়েছে নিকোলসের দারুণ ব্যাটিং। ২৬৩ রান তাড়ায় ১৫৪ রানেই ৫ উইকেট হারিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। তবে নিকোলস ও ডি গ্র্যান্ডহোমের ৬৫ বলে অবিচ্ছিন্ন ১০৯ রানের জুটি ২৫ বল বাকি থাকতেই নিউজিল্যান্ডকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেয়।

লক্ষ্য তাড়ায় নিউজিল্যান্ডের শুরুটা হয়েছিল দারুণ। উদ্বোধনী জুটিতে ৮৮ রান যোগ করেন মার্টিপ গাপটিল ও কলিন মানরো। কিন্তু এরপরই হঠাৎ এক ঝড়ে এলোমেলো হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং। বিনা উইকেটে ৮৮ থেকে দ্রুতই কিউইদের স্কোর হয়ে যায় ৪ উইকেটে ৯৯, ১১ রানেই নেই ৪ উইকেট!

পাকিস্তানের লেগ স্পিনার শাদাব খান পরপর দুই ওভারে ফিরিয়ে দেন দুই ওপেনারকে। প্রথমে মানরোকে (৪২ বলে ৫৬) ফিরিয়ে ভাঙেন জুটি। পরের ওভারে এসে ফিরিয়ে দেন গাপটিলকেও (৩১)। নিজের ২০০তম ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে নামা রস টেলর রুম্মন রইসের বলে এলবিডব্লিউ হন মুখোমুখি চতুর্থ বলেই (১)। চারে নামা টম ল্যাথাম শাদাবের বলে আউট হওয়ার আগে করেন ৮।
পঞ্চম উইকেটে অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও নিকোলস গড়েন ৫৫ রানের জুটি। উইলিয়ামসনকে (৩২) ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন হ্যারিস সোহেল। তখনো ১৫ ওভারে নিউজিল্যান্ডের দরকার ১০৯ রান।

এরপরই ডি গ্র্যান্ডহোমের সঙ্গে নিকোলসের দারুণ সেই জুটি। ডি গ্র্যান্ডহোম শুরু থেকেই খেলেছেন আক্রমণাত্মক। তাকে দারুণ সঙ্গ দিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়েছেন নিকোলস। ডি গ্র্যান্ডহোম মাত্র ২৫ বলে তুলে নেন ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে ফিফটি।

দলের জয়ের আগে ফিফটি তুলে নেন নিকলোসও। ৪৭ থেকে চার মেরে ফিফটির পরের বলে সিঙ্গেলে দলের জয়সূচক রানটি নেন তিনিই। ৪০ বলে ৭ চার ও ৫ ছক্কায় ৭৪ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলা ম্যাচসেরা হয়েছেন ডি গ্র্যান্ডহোম।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে ১১ রানেই ২ উইকেট হারিয়েছিল পাকিস্তান। তবে ফখর জামান, হ্যারিস সোহেল, মোহাম্মদ হাফিজ ও অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের ফিফটিতে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৬২ রানের পুঁজি পায় সফরকারীরা।

এই চারজন ছাড়া আউট হওয়া বাকি ব্যাটসম্যানের কেউই অবশ্য দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি! ৮০ বলে ৫ চার ও ৪ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৮১ রান করেন হাফিজ। ফখর জামান ৫৪, সরফরাজ ৫১ ও সোহেল করেন ৫০ রান। নিউজিল্যান্ডের টিম সাউদি ৩টি ও উইলিয়ামসন নেন ২টি উইকেট।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
খারাপ আচরণের শাস্তি পেলেন কোহলি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46303 Hazarika46303Pratidin Tue, 16 Jan 2018 17:55:33 +0000 -Hazarika ছবি: সংগৃহীতসেঞ্চুরিয়নে প্রথম ইনিংসে ভারতের হয়ে একাই লড়ে যান বিরাট কোহলি। দায়িত্বশীল চমৎকার ব্যাটিংয়ে ১৫৩ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকার ৩৩৫ রানের জবাবে দলীয় স্কোর তিনশ’ http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516103878.jpeg
খারাপ আচরণের শাস্তি পেলেন কোহলি
খারাপ আচরণের শাস্তি পেলেন কোহলি

ছবি: সংগৃহীতসেঞ্চুরিয়নে প্রথম ইনিংসে ভারতের হয়ে একাই লড়ে যান বিরাট কোহলি। দায়িত্বশীল চমৎকার ব্যাটিংয়ে ১৫৩ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকার ৩৩৫ রানের জবাবে দলীয় স্কোর তিনশ’ পার করান। কিন্তু বিপত্তিটা অন্য জায়গায়। মাঠে আম্পায়ারের সঙ্গে অসঙ্গত অাচরণের জেরে শাস্তির আওতায় আনা হয়েছে ভারতীয় অধিনায়সোমবার (১৫ জানুয়ারি) তৃতীয় দিনের শেষদিকে প্রোটিয়াদের দ্বিতীয় ইনিংসের ২৫তম ওভারের ঘটনা। মাটিতে আগ্রাসী ভঙ্গিতে বল ছুঁড়ে মারার আগে আম্পায়ার মাইকেল গফের কাছে কোহলি বারেবারেই অভিযোগ করে যান যে, বৃষ্টির কারণে স্যাঁতস্যাঁতে আউটফিল্ডের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বল। লঙ্ঘন করেন আইসিসির আচরণবিধির লেভেল-১ এর আর্টিক্যাল ২.১.১।ছবি: সংগৃহীতসেঞ্চুরিয়নে প্রথম ইনিংসে ভারতের হয়ে একাই লড়ে যান বিরাট কোহলি। দায়িত্বশীল চমৎকার ব্যাটিংয়ে ১৫৩ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকার ৩৩৫ রানের জবাবে দলীয় স্কোর তিনশ’ পার করান। কিন্তু বিপত্তিটা অন্য জায়গায়। মাঠে আম্পায়ারের সঙ্গে অসঙ্গত অাচরণের জেরে শাস্তির আওতায় আনা হয়েছে ভারতীয় অধিনায়ককে।সোমবার (১৫ জানুয়ারি) তৃতীয় দিনের শেষদিকে প্রোটিয়াদের দ্বিতীয় ইনিংসের ২৫তম ওভারের ঘটনা। মাটিতে আগ্রাসী ভঙ্গিতে বল ছুঁড়ে মারার আগে আম্পায়ার মাইকেল গফের কাছে কোহলি বারেবারেই অভিযোগ করে যান যে, বৃষ্টির কারণে স্যাঁতস্যাঁতে আউটফিল্ডের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বল। লঙ্ঘন করেন আইসিসির আচরণবিধির লেভেল-১ এর আর্টিক্যাল ২.১.১।ম্যাচ ফি’র ২৫ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে কোহলিকে। নামের পাশে যোগ হয়েছে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট। দোষ স্বীকার করে নেওয়ায় এ ব্যাপারে আর শুনানির প্রয়োজন পড়েনি।লেভেল-১ ভঙ্গ করার দায়ে সর্বনিম্ন শাস্তি অফিসিয়াল তিরস্কার, সর্বোচ্চ ম্যাচ ফি’র ৫০ শতাংশ জরিমানা ও একটি বা দু’টি ডিমেরিট পয়েন্ট।শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন কোহলি। ৩০৭ রানে থামে সফরকারীরা। ২৮ রানের লিড পায় প্রোটিয়ারা। তিন ম্যাচ সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে ডি ভিলিয়ার্স-ডু প্লেসির দল। কেপটাউনে অনুষ্ঠিত লো-স্কোরিং প্রথম টেস্টে ২০৮ রানের টার্গেটে নেমে মাত্র ১৩৫ রানে গুটিয়ে যায় টিম ইন্ডিয়ার ব্যাটিং লাইনআপ। দ. আফ্রিকার মাটিতে ২৫ বছরেও টেস্ট সিরিজ না জেতা ভারতের সামনে টিকে থাকতে সেঞ্চুরিয়নে ঘুরে দাঁড়ানোর বিকল্প নেই।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ফেসবুকের লোকসান ৩৩০ কোটি ডলার: জাকারবার্গ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46301 Hazarika46301Pratidin Tue, 16 Jan 2018 17:19:02 +0000 -Hazarika বছরের শুরুতেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুককে আরও বন্ধুত্বপূর্ণ করে তোলার সিদ্ধান্ত নেয় প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। ব্র্যান্ড, ব্যবসা ও মিডিয়ার পেজগুলোর পোস্ট কমিয়ে বন্ধুদের দেওয়া স্ট্যাটাস, মন্তব্য, ভিডিও http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516101615.jpg
ফেসবুকের লোকসান ৩৩০ কোটি ডলার: জাকারবার্গ
ফেসবুকের লোকসান ৩৩০ কোটি ডলার: জাকারবার্গ

বছরের শুরুতেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুককে আরও বন্ধুত্বপূর্ণ করে তোলার সিদ্ধান্ত নেয় প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। ব্র্যান্ড, ব্যবসা ও মিডিয়ার পেজগুলোর পোস্ট কমিয়ে বন্ধুদের দেওয়া স্ট্যাটাস, মন্তব্য, ভিডিও বেশি দেখানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ফেসবুক। এতে মানুষের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ বাড়বে, এমনটা মনে করেন ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। এ ব্যাপারে নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজ থেকে গত বৃহস্পতিবার একটি স্ট্যাটাসও দেন তিনি।
আর ওই স্ট্যাটাস কাল হয়ে দাঁড়াল। জাকারবার্গ ওই ঘোষণা দেওয়ার পর এক দিনেই পুঁজিবাজারে ফেসবুকের শেয়ারের দাম ৪ শতাংশ কমে যায়। আর তাতে ফেসবুকের লোকসান হলো প্রায় ৩৩০ কোটি মার্কিন ডলার।
তবে এমন কিছু যে হতে চলেছে তা আগেই জানতেন জাকারবার্গ। তিনি তাঁর স্ট্যাটাসে এ বিষয়ে বলেছিলেন, ‘নিউজফিডে পরিবর্তন এলে আপনারা ব্যবসা, ব্র্যান্ড ও মিডিয়ার পোস্ট কম দেখতে পাবেন। কিন্তু আমি জানি এতে মানুষ ফেসবুকে কম সময় ব্যয় করবে, যা বেশ কিছু বিষয়ে প্রভাব ফেলবে। তবে মানুষ যতটুকু সময়ই ফেসবুক ব্যবহার করবে, সে সময়টা যেন ভালো কাটে, সেটা আমরা নিশ্চিত করব।’
ফেসবুকের হঠাৎ এমন লোকসানের খবরে আঁতকে উঠেছেন এর অংশীদারেরা। তবে ফেসবুক এখনো প্রায় ৫২০ কোটি ডলারের বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্রতিষ্ঠান। সেই সঙ্গে মার্ক জাকারবার্গ এখনো পৃথিবীর শীর্ষ দশ ধনীর একজন।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
তিন বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে স্টোকসের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46292 Hazarika46292Pratidin Tue, 16 Jan 2018 11:39:45 +0000 -Hazarika ব্রিস্টলে নাইট ক্লাবে মারামারির ঘটনায় বেন স্টোকসের বিরুদ্ধে পুলিশি তদন্ত চলছিল। সেই তদন্ত অবশেষে শেষ হয়েছে। তদন্ত শেষে ইংলিশ এই অলরাউন্ডারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516081269.jpg
তিন বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে স্টোকসের
তিন বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে স্টোকসের

ব্রিস্টলে নাইট ক্লাবে মারামারির ঘটনায় বেন স্টোকসের বিরুদ্ধে পুলিশি তদন্ত চলছিল। সেই তদন্ত অবশেষে শেষ হয়েছে। তদন্ত শেষে ইংলিশ এই অলরাউন্ডারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে ক্রাউন প্রসিকিউশন সার্ভিস (সিপিএস)।

ঘটনায় স্টোকসের সঙ্গে অভিযুক্ত হয়েছেন আরো দুজন। ব্রিস্টলে ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে চলবে তাদের বিচার কাজ। তাদের আদালতে হাজির হওয়ার তারিখ পরে জানানো হবে। আর বিচারে দোষী প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ তিন বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে স্টোকসের।

তদন্ত শেষে সোমবার অ্যাভন ও সমারসেট পুলিশ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘ব্রিস্টলের কুইন্স রোডের ঘটনায় তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তারা হলেন বেন স্টোকস (২৬), রায়ান আলী (২৮) ও রায়ান হেল (২৬)। সকল প্রমাণ পর্যালোচনা করে এই তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগ দায়ের করার অনুমতি দিয়েছে সিপিএস।’

স্টোকস এক বিবৃতিতে তার পাশে থাকার জন্য পরিবার, বন্ধু, সমর্থক ও সতীর্থদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। আদালতেই তিনি নিজের অবস্থান পরিষ্কার করতে চান, ‘আমি আমার নাম পরিষ্কার করার সুযোগের অপেক্ষায় আছি। তবে সঠিক সময়ে এটা করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে আমাকে, আর সেটা হবে শুনানিতে। সিপিএস আমাকে অভিযুক্ত করেছে, রায়ান আলী ও রায়ান হেলকেও। এর মানে হলো ওই রাতের ঘটনা কোর্টের মাধ্যমে জনসম্মুখে আসবে। তার আগ পর্যন্ত আমার পুরো মনোযোগ থাকবে ক্রিকেটে।’

গত ২৫ সেপ্টেম্বর ব্রিস্টলে সেই মারামারির ঘটনার সময় স্টোকসের সঙ্গে ছিলেন সতীর্থ অ্যালেক্স হেলস। ঘটনার দুই দিন পর দুজনকেই পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত ইংল্যান্ড দল থেকে নিষিদ্ধ করা হয়। পরে হেলসকে অভিযোগ থেকে মুক্তি দেওয়া হয়। কিন্তু স্টোকস ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ ও ওয়ানডে দলে থাকলেও তদন্ত শেষ না হওয়ায় অস্ট্রেলিয়া যেতে পারেননি।

জাতীয় দলে খেলতে না পারায় ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটে ছয়টি ম্যাচ খেলেন স্টোকস। ক্যান্টারবুরির হয়ে খেলেন তিনটি একদিনের ও তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। এ মাসের শেষ দিকে হতে যাওয়া আইপিএলের নিলামেও আছে তার নাম।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
মেয়র আনিসুল হককে শ্রদ্ধা জানাবেন শিল্পীরা http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46291 Hazarika46291Pratidin Tue, 16 Jan 2018 11:18:29 +0000 -Hazarika দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের শিল্পীদের জন্য তৈরি সংগঠন ‘শিল্পীর পাশে ফাউন্ডেশন’-এর প্রধান উদ্যোক্তা ছিলেন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক। ফাউন্ডেশনটি এবার তাকে স্মরণ করে তার প্রতি শ্রদ্ধা http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516080035.jpg
মেয়র আনিসুল হককে শ্রদ্ধা জানাবেন শিল্পীরা
মেয়র আনিসুল হককে শ্রদ্ধা জানাবেন শিল্পীরা

দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের শিল্পীদের জন্য তৈরি সংগঠন ‘শিল্পীর পাশে ফাউন্ডেশন’-এর প্রধান উদ্যোক্তা ছিলেন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক। ফাউন্ডেশনটি এবার তাকে স্মরণ করে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য বিশেষ এক অনুষ্ঠানের আয়োজনকরেছে। আগামী ১৭ জানুয়ারি সন্ধ্যায় বাংলা একাডেমিতে হবে এ অনুষ্ঠান। এখানে দেশের ব্যবসা, অর্থনীতি, নেতৃত্ব, যোগাযোগ ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে আনিসুল হকের রেখে যাওয়া অনন্য অবদান নিয়ে কথা বলা ও তাকে বিশেষভাবে স্মরণ করা হবে।
সম্মিলনে উপস্থিত হবেন শিল্পীর পাশে ফাউন্ডেশনের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, ভাইস-চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, কোষাধ্যক্ষ সৈয়দ আবদুল হাদী, সদস্য অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, শিল্পী ফেরদৌসী রহমান, মুস্তাফা মনোয়ার, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আবুল খায়ের লিটু, ফরিদুর রেজা সাগর, নাসিরুদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, আলী যাকের, ফয়সাল সিদ্দিকী বগি, অঞ্জন চৌধুরী পিন্টুসহ অনেকে। অনুষ্ঠানে আনিসুল হকের কীর্তিময় জীবনের ওপর একটি সংক্ষিপ্ত ভিডিওচিত্রও প্রদর্শিত হবে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
আইপিএলে মোস্তাফিজকে চায় মুম্বাই http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46290 Hazarika46290Pratidin Tue, 16 Jan 2018 11:04:14 +0000 -Hazarika আইপিএলের আগামী আসরে প্রতিটি দলকেই প্রায় নতুন করে দল সাজাতে হচ্ছে। সর্বোচ্চ পাঁচজন করে খেলোয়াড় ধরে রাখার নিয়ম থাকলেও বেশিরভাগ দলই তিনজন করে রেখে বাকিদের http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516079446.jpg
আইপিএলে মোস্তাফিজকে চায় মুম্বাই
আইপিএলে মোস্তাফিজকে চায় মুম্বাই

আইপিএলের আগামী আসরে প্রতিটি দলকেই প্রায় নতুন করে দল সাজাতে হচ্ছে। সর্বোচ্চ পাঁচজন করে খেলোয়াড় ধরে রাখার নিয়ম থাকলেও বেশিরভাগ দলই তিনজন করে রেখে বাকিদের ছেড়ে দিয়েছে। টাইগার তারকা মোস্তাফিজকেও ছেড়ে দিয়েছে তার দল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এবার এ পেসারকে দলে পেতে মরিয়া মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।চলতি মাসের ২৭ আর ২৮ জানুয়ারি আইপিএলের নিলাম হবে ব্যাঙ্গালুরুতে। এর আগেই প্রতিদল কম্বিনেশন অনুযায়ী নিজেদের মতো করে খেলোয়াড় নির্ধারণ করে রাখছে। সেই হিসেবে মুম্বাইয়ের নজরে আছে টাইগারদের বিস্ময় এই বোলার।শেষ দুই আসরে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে মাঠ মাতান মোস্তাফিজ। আইপিএলে নিজের প্রথম আসরে দলের শিরোপা জয়ে রাখেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান। নির্বাচিত হন সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়। কিন্তু গত আসরে বল হাতে বিবর্ণ ছিল এ বাঁহাতি পেসারের পারফরম্যান্স। নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে না পারায় মাত্র এক ম্যাচে মাঠে নামেন এই তারকা।এবারের আসরে তাকে দলে রাখেনি সানরাইজার্স। তার দিকে নজর পড়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাইয়ের। নিলামের মোস্তাফিজের ভিত্তি মূল্য ধরা হয়েছে ১ কোটি থেকে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
প্রথম রাউন্ডেই বিদায় ভেনাসের http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46289 Hazarika46289Pratidin Tue, 16 Jan 2018 10:51:40 +0000 -Hazarika বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম প্রতিযোগিতা অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অঘটনের শিকার হয়েছেন ভেনাস উইলিয়ামস। গত বছরের রানার-আপ ভেনাস প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছেন।মেলবোর্নে সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের এই টেনিস http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516078369.jpg
প্রথম রাউন্ডেই বিদায় ভেনাসের
প্রথম রাউন্ডেই বিদায় ভেনাসের

বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম প্রতিযোগিতা অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অঘটনের শিকার হয়েছেন ভেনাস উইলিয়ামস। গত বছরের রানার-আপ ভেনাস প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছেন।

মেলবোর্নে সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের এই টেনিস তারকাকে ৬-৩, ৭-৫ গেমে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠেছেন সুইজারল্যান্ডের বেলিন্দা বেনচিচ।

ভেনাসের ব্যর্থতার দিনে বাদ পড়েছেন গত বছরের ইউএস ওপেনজয়ী স্লোয়ানে স্টিফেনসও। চীনের ঝেং সুই স্টিফেনসকে হারিয়েছেন ২-৬, ৭-৬, ৬-২ গেমে।

ছেলেদের এককে সহজ জয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠেছেন ফেবারিট রাফায়েল নাদাল। প্রতিযোগিতার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নাদাল মাত্র ৯৪ মিনিটে এসত্রেয়া বুরগোসকে হারিয়েছেন ৬-১, ৬-১, ৬-১ গেমে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
চিকিৎসার নামে যৌন হেনস্তা, এবার মুখ খুললেন অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46284 Hazarika46284Pratidin Tue, 16 Jan 2018 10:43:21 +0000 -Hazarika চিকিৎসার নামে যৌন হেনস্তার জন্য অভিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে এবার মুখ খুলেছেন চারবারের অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী এক খেলোয়াড়। ওই চিকিৎসকের নাম ল্যারি নাসের। তার http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516077866.jpg
চিকিৎসার নামে যৌন হেনস্তা, এবার মুখ খুললেন অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী
চিকিৎসার নামে যৌন হেনস্তা, এবার মুখ খুললেন অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী

চিকিৎসার নামে যৌন হেনস্তার জন্য অভিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে এবার মুখ খুলেছেন চারবারের অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী এক খেলোয়াড়। ওই চিকিৎসকের নাম ল্যারি নাসের। তার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ এনেছেন রিও অলিম্পিকে যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে চারটি স্বর্ণ আর একটি বোঞ্জপদক জয়ী সিমোন বেলিস।টুইটারে যৌন হেনস্তাবিরোধী জনপ্রিয় ‘#মি ঠু’ ট্যাগের প্রচারে সম্পৃক্ত হয়ে নিজের দুঃসহ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন সিমোন।এতে তিনি উল্লেখ করেন, যৌন হেনস্তার ঘটনায় খেলাধুলার জন্য তার ভালোবাসা আর আনন্দ কেড়ে নিতে পারেনি।ঘটনা প্রসঙ্গে সিমোন বলেন, ‘এই ভোগান্তির কথা বর্ণনা করা কঠিন। এটি আমার জন্য আরও কষ্টকর হয়, যখন ২০২০ সালের টোকিও অলিম্পিকের প্রস্তুতির জন্য আমার সেই প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে আসতে হয়, যেখানে আমি যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছি।’তিনি আরও বলেন, ‘আমি এই খেলাকে খুব ভালোবাসি এবং আমি কখনই এটি ত্যাগ করে যাব না। আমি কোন ব্যক্তিকে বা যারা তাকে প্রশ্রয় দিয়ে দিয়েছে তাদের এই সুযোগ দেব না, যাতে তারা আমার ভালোবাসা আর আনন্দকে চুরি করতে পারে।’শিশু যৌনতার ছবি সংরক্ষণ আর জিমন্যাস্টিকদের হয়রানি করার অভিযোগে এর মধ্যেই অবশ্য ল্যারি নাসেরের ৬০ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে।তার বিরুদ্ধে চিকিৎসার নামে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছেন আরও তিন মার্কিন অলিম্পিয়ান, যাদের মধ্যে রয়েছেন স্বর্ণজয়ী গ্যাবি ডগলাসও।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
সাকিবের দৃষ্টিতে ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46279 Hazarika46279Pratidin Tue, 16 Jan 2018 22:27:00 +0000 -Hazarika ক্রীড়া প্রতিবেদক॥ প্রথমে জিম্বাবুয়েকে মাত্র ১৭০ রানে আটকে ফেলা। এরপর ব্যাটিংও অন্যরকম হলো। ২৮.৩ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নিল বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516033642.jpg
সাকিবের দৃষ্টিতে ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট
সাকিবের দৃষ্টিতে ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট

ক্রীড়া প্রতিবেদক॥ প্রথমে জিম্বাবুয়েকে মাত্র ১৭০ রানে আটকে ফেলা। এরপর ব্যাটিংও অন্যরকম হলো। ২৮.৩ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নিল বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সাম্প্রতিক বছরগুলো শুধু জিতেই আসছে বাংলাদেশ। তবে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে যেভাবে জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে দিল, তাতে বাহাবা পেতেই পারে টাইগাররা। সাকিব জানালেন, গেমপ্ল্যানগুলো পুরোপুরি সফল হওয়ার কারণেই এত বড় জয়। টস জেতাটাও যে গুরুত্বপূর্ণ ছিল সেটাও বুঝিয়ে দিলেন ম্যাচে তিন উইকেট পাওয়া সাকিব। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন,‘ প্রথমে ব্যাট করা একটু কঠিন ছিল। আস্তে আস্তে উইকেট সহজ হয়ে যায়। আমাদের টার্গেট ছিল নতুন বলে শুরুতে উইকেট তুলে নেওয়া। আমরা অতীতে ওদের বাঁহাতি স্পিন দিয়ে ঘায়েল করেছি। সেটা মাথায় রেখেই আমি বোলিং শুরু করি। ভাগ্য ভালো ছিল যে, শুরুতেই আমরা দুই উইকেট তুলে নিতে পেরেছি। এটা ম্যাচের অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ দিক ছিল।’
গোটা দলের বোলিং পারফরম্যান্সে খুশি সাকিব বলেন,‘ আমরা গত কিছু দিন ধরে বোলিং নিয়ে কাজ করেছি। এ ম্যাচে তার প্রতিফলনও হযেছে। মাশরাফি খুব ভালো বল করেছে। রুবেল তো বেশ কিছু দিন ধরে ভালো করছে। অসাধারণ বোলিং করেছে মুস্তাফিজ। আসলে সে কখনও খারাপ করেনি। একজনের পক্ষে সব ম্যাচে ভালো করাও কঠিন। কিছুদিন ধরে সে বোলিংয়ের কিছু দিক নিয়ে কাজ করেছে। এ ম্যাচে তার উন্নতিও চোখে পড়ার মতো। আমি তার বোলিংয়ে সন্তুষ্ট।’
প্রথম ম্যাচে বড় জয়। সামনে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বড় ম্যাচ। সাকিব মনে করেন, এই জয়টা শ্রীলঙ্কা ম্যাচে কাজে আসবে।তিনি বলেন,‘ জয় দিয়ে বছর শুরু করতে পেরেছি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জয় প্রাপ্য ছিল। তবে যেভাবে আমরা জিতেছি সেটা গুরুত্বপ্র্ণূ। আমি মনে করি সামনে শ্রীলঙ্কা ম্যাচে এটা কাজে আসবে।’

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
মাত্র একদিনেই মিলবে ব্রণ থেকে মুক্তি! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46278 Hazarika46278Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:52:00 +0000 -Hazarika স্বাস্থ্য ডেস্কমুখে ব্রণ বা ফুসকুড়ি হলে তা যেমন বিরক্তিকর, তেমনই মুখের সৌন্দর্যকে বহুলাংশে কমিয়ে দেয়। অনেকের ক্ষেত্রে ব্রণ সেরে গিয়ে বারবার হয়। অনেকের ক্ষেত্রে একবার http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031534.jpg
মাত্র একদিনেই মিলবে ব্রণ থেকে মুক্তি!
মাত্র একদিনেই মিলবে ব্রণ থেকে মুক্তি!

স্বাস্থ্য ডেস্কমুখে ব্রণ বা ফুসকুড়ি হলে তা যেমন বিরক্তিকর, তেমনই মুখের সৌন্দর্যকে বহুলাংশে কমিয়ে দেয়। অনেকের ক্ষেত্রে ব্রণ সেরে গিয়ে বারবার হয়। অনেকের ক্ষেত্রে একবার ব্রণ হলে তা আর সারতে চায় না।
আসুন জেনে নিন একদিনে মুখের ব্রণ বা ফুসকুড়ি থেকে মুক্তি পাবেন কিভাবে।
১। সরিষা
মুখে ব্রণ বা অন্য কোনও সমস্যা হলে সরিষা দারুণ কাজ করে। এতে স্যালিসাইলিক অ্যাসিড রয়েছে যা সংক্রমণকে ধ্বংস করে দেয়। তাই টেবিল চামচের এক-চতুর্থাংশ সরিষা গুড়া নিয়ে তাতে মধু মিশিয়ে নিন। মুখে এই মিশ্রণটি ভালো করে মিশিয়ে ১৫ মিনিট রেখে মুছে ফেলুন।
২। সবুজ চা
বেশি করে সবুজ চা ফুটিয়ে সেই পানি ঠান্ডা করে তা মুখে ব্রণের উপরে মাখুন।
৩। টমেটো
ত্বকের যেকোনো সংক্রমণ কমাতে টমেটো বিশেষ সাহায্য করে। টমেটো কেটে তার টুকরা বা রস বানিয়ে মুখে মাখুন। কিছুক্ষণ পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
৪। রসুন
রসুনের রস ব্রণের উপরে লাগান। চাইলে অনেকক্ষণ লাগিয়ে রাখতে পারেন। পরে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
৫। ডিমের সাদা অংশ
ডিমের সাদা অংশ ব্রণের উপরে লাগান। ২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।
৬। ভিনেগার
ভিনেগারও ব্রণের সমস্যায় দারুণ কাজ করে। তুলোয় ভিনেগার লাগিয়ে ব্রণে লাগান। ৫ মিনিট লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন। পুরো মুখে ভিনেগার লাগাবেন না।
৭। লেবুর রস
রাতে শোওয়ার আগে তুলার বল লেবুর রসে ভিজিয়ে সারারাত মুখের ব্রণে লাগিয়ে রাখতে পারেন। সকালে উঠে দেখবেন ব্রণ সমস্যা অনেক কমেছে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
কোমর ব্যথায় স্থায়ী মুক্তি পেতে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46277 Hazarika46277Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:51:00 +0000 -Hazarika স্বাস্থ্য ডেস্কআমরা অনেকেই হয়তো শরীরের জয়েন্ট (গাঁট), কোমর, হাঁটু, ঘাড় এগুলোর ব্যথায় দীর্ঘদিন ধরে ভুগি। এসব ব্যথা দূর করতে কার্যকর খাবার হচ্ছে জেলাটিন (জীবজন্তুর হাড় http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031501.jpg
কোমর ব্যথায় স্থায়ী মুক্তি পেতে
কোমর ব্যথায় স্থায়ী মুক্তি পেতে

স্বাস্থ্য ডেস্কআমরা অনেকেই হয়তো শরীরের জয়েন্ট (গাঁট), কোমর, হাঁটু, ঘাড় এগুলোর ব্যথায় দীর্ঘদিন ধরে ভুগি। এসব ব্যথা দূর করতে কার্যকর খাবার হচ্ছে জেলাটিন (জীবজন্তুর হাড় ও বর্জ্য অংশ পানিতে সিদ্ধ করে তৈরি করা জেলির মতো স্বচ্ছ স্বাদহীন পদার্থ)। তাই দেহের ব্যথা দূর করতে চাইলে নিচে দেওয়া খাদ্যপ্রণালিটি অনুসরণ করতে পারেন। খাদ্যপ্রণালি দিয়েছে হেলদি ফুড টিম ডটকম।
ক্স যেকোনো দোকান থেকে ১৫০ গ্রাম জেলাটিন কিনুন (এক মাসের জন্য ১৫০ গ্রামই যথেষ্ট)।
ক্স বিকেলে ওই জেলাটিন থেকে পাঁচ গ্রাম নিয়ে (দুই চা চামচ) সিকি কাপ ঠাণ্ডা পানির (ফ্রিজ থেকে নামানো) সঙ্গে মেশান। সারা রাত এভাবে রাখুন (ফ্রিজে রাখবেন না)। সারা রাত ভিজিয়ে রাখার পর জেলাটিন জেলির আকার ধারণ করবে।
ক্স সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে এটা পান করুন। জুস, পানি, দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে এই জেলাটিন খেতে পারেন।
এই খাদ্যপ্রণালি এক সপ্তাহ গ্রহণে ব্যথা অনেকটাই কমে আসবে। এক মাস এই পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে। ছয় মাসের মধ্যে এই পদ্ধতি পুনরায় করতে পারবেন। এই পদ্ধতি অনুসরণে গাঁটের মাঝে তৈলাক্ত পদার্থ ফিরিয়ে আনা সম্ভব। এর মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গের কার্যক্রমকেও ভালো রাখা যায়। যারা দীর্ঘদিন ধরে ব্যথানাশক ওষুধ খাচ্ছেন, তাদের জন্য এই খাদ্যপ্রণালি অন্যতম সমাধান হতে পারে।
জেলাটিনের উপকারিতা
জেলাটিন এমন এক ধরনের জিনিস যা প্রাণীদেহের সংযোগ টিস্যুকে ভালো রাখতে সাহায্য করে। এটি হাঁড়, কোলাজেন ও কার্টিলেজের শুদ্ধিকরণে কাজ করে। দেহের অভ্যন্তরীণ ফাইবার ও ছোট কোষের অবস্থার উন্নতি করে। জেলাটিন দেহে দুই ধরনের এমাইনো এসিড উৎপন্ন করে; প্রোলাইন ও হাইড্রোসিপ্রোলাইন। এগুলো সংযোগ টিস্যুর পুনরুদ্ধারে ইতিবাচক ভূমিকা রাখে। সংযোগ টিস্যুর বৃদ্ধিতে কাজ করে। এটি গাঁটের রোগে বেশ কার্যকর।
এ ছাড়া জেলাটিন আরো যেসব কাজ করে :
* হৃদযন্ত্র ও গাঁটের পেশিশক্তি বাড়ায়।
* দেহের পরিপাক ক্রিয়া বৃদ্ধি করে।
* ত্বকের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখে।
*দেহের রগ এবং লিগামেন্টের স্থিতিস্থাপকতা ও শক্তি বৃদ্ধি করে।
* অস্টিয়ো পোরোসিস এবং অস্টিয়ো আরথ্রাইটিসের প্রতিরোধে কাজ করে।
* চুল ও নখের কাঠামোগত বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
কীভাবে বুঝবেন আপনার আলসার হয়েছে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46276 Hazarika46276Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:51:00 +0000 -Hazarika স্বাস্থ্য ডেস্কনয়টা-পাঁচটা অফিস করা মানুষ প্রায়ই না খেয়ে থেকে অভ্যস্ত। এই না খেয়ে থাকাটাকে অনেকেই কিছু মনে করেন না। কিন্তু এটাকে আলসারের প্রাথমিক কারণ হিসেবে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031466.jpg
কীভাবে বুঝবেন আপনার আলসার হয়েছে
কীভাবে বুঝবেন আপনার আলসার হয়েছে

স্বাস্থ্য ডেস্কনয়টা-পাঁচটা অফিস করা মানুষ প্রায়ই না খেয়ে থেকে অভ্যস্ত। এই না খেয়ে থাকাটাকে অনেকেই কিছু মনে করেন না। কিন্তু এটাকে আলসারের প্রাথমিক কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেন চিকিৎসকেরা। আবার আলসার হলে অনেকেই খুব একটা আমলে নেন না। এটাও ঠিক নয়। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না করা হলে আলসার মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। জেনে নিন আলসারের লক্ষণগুলো।
আলসারের প্রথম ও প্রাথমিক লক্ষণ হলো বুক জ্বালাপোড়া করা। মশলাযুক্ত বা তৈলাক্ত খাবার খেলে বুকের একটু নিচে জ্বালাপোড়া করবে। এর সাথে টক ঢেঁকুরও আসতে পারে। অনেক সময় বুক জ্বালাপোড়ার সাথে নাভির ডান বা বাম পাশে অল্প চিনচিনে ব্যথা অনুভূত হতে পারে। মাঝে মাঝে এই ব্যথা পিঠ পর্যন্ত ছড়িয়ে যায়।
আলসার মারাত্মক আকার ধারণ করলে রোগীর বমি হতে পারে। এ সময় বমির সাথে রক্ত বের হওয়াও অস্বাভাবিক নয়। এই পর্যায়ে অতিসত্বর চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করা উচিত।
খাবারে অরুচি থাকাও আলসারের আরেকটি লক্ষণ। মনে হবে যেনো পেট একেবারে ভরা। খাবার না খাওয়ার কারণে রক্ত স্বল্পতা, গা ম্যাজ ম্যাজ করা, অল্প কাজে ক্লান্ত বোধ করা ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। এর সাথে পেট ফাঁপা অনুভূত হবে। ঘন ঘন বায়ু ত্যাগের সমস্যাও থাকতে পারে।
এছাড়া আলসারের কারণে পেটের ভিতর রক্তক্ষরণ হতে পারে। তবে সেটা একেবারে মারাত্মক পর্যায়ে হয়। এই সময় পেটের ভিতর রক্তক্ষরণের কারণে পায়খানা আঠালো এবং কালচে রঙের হতে পারে। এই সমস্ত লক্ষণগুলোতে অতি দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
টানা দীর্ঘ সময় বসে থাকলে আক্রান্ত হতে পারেন ডায়াবেটিস-ক্যানসার ! http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46275 Hazarika46275Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:50:00 +0000 -Hazarika স্বাস্থ্য ডেস্কআপনি কি জানেন, টানা দীর্ঘ সময় বসে থাকলে আক্রান্ত হতে পারেন ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, এমনকি মারাত্মক ক্যানসারে?কি, অবাক হচ্ছেন? সম্প্রতি এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমন http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031421.jpg
টানা দীর্ঘ সময় বসে থাকলে আক্রান্ত হতে পারেন ডায়াবেটিস-ক্যানসার !
টানা দীর্ঘ সময় বসে থাকলে আক্রান্ত হতে পারেন ডায়াবেটিস-ক্যানসার !

স্বাস্থ্য ডেস্কআপনি কি জানেন, টানা দীর্ঘ সময় বসে থাকলে আক্রান্ত হতে পারেন ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, এমনকি মারাত্মক ক্যানসারে?
কি, অবাক হচ্ছেন? সম্প্রতি এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমন তথ্যই। গবেষকরা বলছেন, যারা দিনে আটঘণ্টা বা তার বেশি সময় বিরতিহীনভাবে বা খুব কম বিরতিতে একভাবে বসে কাজ করেন বা টিভি দেখেন, তাদের শতকরা ৯০ শতাংশেরই রয়েছে টাইপ টু ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি।
গবেষণার তথ্যে আরও জানা যায়, যারা দীর্ঘ সময় বসে থাকেন তাদের ৫০ শতাংশ বেশি হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিসহ রয়েছে ৫৪ শতাংশ ফুসফুস ক্যানসার, ৬৬ শতাংশ জরায়ু ক্যান্সার ও ৩০ শতাংশ কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা।
মায়ো ক্লিনিক, এরিজোনা স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক ডক্টর জেমস লেভিন জানান, দীর্ঘ সময় বসে থাকার ফলে ব্যক্তির মধ্যে বিপাকীয় উপসর্গসহ প্রায় একগুচ্ছ শারীরিক সমস্যার উন্মেষ হয়। উচ্চরক্তচাপ থেকে শুরু করে রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যাওয়া, কোমরসহ অন্যান্য পেশিতে চর্বি জমা হওয়া প্রভৃতি সমস্যা দেখা দেয়।
একটানা বসে কাজ করলে শরীরে যে নয়টি ক্ষতি ডেকে আনতে পারে:
মাথা
দীর্ঘ সময় বসে থাকার ফলে মস্তিষ্কে রক্ত সরবরাহকারী নালীতে সুষ্ঠুভাবে রক্তপ্রবাহে বাধা সৃষ্টি হয়। ফলে স্ট্রোক হতে পারে।
ফুসফুস
একটানা আট থেকে ১২ ঘণ্টা বসে থাকলে দিনে দু’বার রক্ত জমাট বা পালমোনারি এমবোলিজম হওয়ার ঝুঁকি থাকে। আর এই জমাট রক্ত যদি মস্তিষ্কে প্রবাহিত হয় তাহলে ব্যক্তির হতে পারে স্ট্রোক।
বাহু
হাঁটাচলা বা শারীরিক কার্যকলাপ কম হলে উচ্চরক্তচাপ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় অনেকখানিই।
পাকস্থলী
একভাবে বসে থাকলে কোলন ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এছাড়াও বেশিক্ষণ একভাবে বসে থাকলে পেশির রক্তনালীতে থাকা এনজাইম চর্বি পোড়ানোর ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। তাই স্বাভাবিক বিপাকক্রিয়া ব্যাহত হয়।
পায়ের পাতা
স্নায়ুর ওপর দীর্ঘক্ষণ চাপ পড়লে পা অবস হয়ে স্নায়ুর ক্ষতি হতে পারে।
ঘাড়
সারাদিন পা অপরিবর্তিত অবস্থায় থাকার ফলে পায়ে পানি জমে। হঠাৎ উঠে দাঁড়ানোতে সব জলীয় পদার্থ ঘাড়ে এসে জমা হয়। এ থেকে ঘাড়ে ব্যথা ও নিদ্রাহীনতা হতে পারে।
হৃৎপিণ্ড
যারা বেশিরভাগ সময় বসে থাকেন, তাদের অন্যদের তুলনায় দু’গুণ বেশি হৃদরোগ ও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।
পিঠ
টানা বসে থাকায় মেরুদণ্ডে চাপ পড়ে মেরুদণ্ড সংকুচিত হয়ে যেতে পারে।
পা : বসে থাকার ফলে পানি পায়ে এসে জমা হয়, অনেক সময় পা ফুলে যায়। কিন্তু কিছুক্ষণ পর পর হাঁটাহাটি করলে সেগুলো সারা শরীরে সহজেই ছড়িয়ে পড়তে পারে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
যক্ষ্মা প্রতিরোধ করবে হলুদ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46274 Hazarika46274Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:49:00 +0000 -Hazarika স্বাস্থ্য ডেস্কখাবার স্বাদ, গন্ধ এবং রঙের জন্য মশলা হিসেবে হলুদ খুব জনপ্রিয়। শুধু মশলা হিসেবে নয়, হলুদের যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও ব্যাপক তা এর আগে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031379.jpg
যক্ষ্মা প্রতিরোধ করবে হলুদ
যক্ষ্মা প্রতিরোধ করবে হলুদ

স্বাস্থ্য ডেস্কখাবার স্বাদ, গন্ধ এবং রঙের জন্য মশলা হিসেবে হলুদ খুব জনপ্রিয়। শুধু মশলা হিসেবে নয়, হলুদের যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও ব্যাপক তা এর আগে বিভিন্ন গবেষণায় উঠে এসেছে। তাছাড়া, আয়ুর্বেদ চিকিৎসায় বহুকাল আগে থেকে হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে। নতুন এক গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, যক্ষ্মা প্রতিরোধেও হলুদ নিয়ামক হিসেবে কাজ করে।
গবেষকেরা বলেন, বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্যগত জটিলতা প্রতিরোধে কাজ করে হলুদ। হলুদে প্রদাহ প্রতিরোধী, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান রয়েছে। এমনকি এর ক্যানসার প্রতিরোধী উপাদান আছে বলেও গবেষণায় খুঁজে পাওয়া গেছে। গবেষকরা আরও বলেন, মানবদেহের ইমোনো কোষগুলোকে উদ্দীপ্ত করে ম্যাক্রোফেজেস। হলুদে থাকা ‘কারকামিন’ উপাদান রয়েছে যা মাইকোব্যাকটেরিয়াম যক্ষ্মা দূর করে।
যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব কলোরাডো স্কুল অব মেডিসিনের অধ্যাপক এবং গবেষণার প্রধান লেখক জিউয়ান বাই বলেন, আমাদের গবেষণায় প্রমাণ পাওয়া গেছে, হলুদে থাকা কারকামিন মানবকোষে মাইকোব্যাকটেরিয়াম যক্ষ্মার সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। যক্ষ্মা প্রতিরোধে কারকামিনের প্রতিরক্ষামূলক ভূমিকার বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। এর যদি সত্যতা প্রমাণিত হয় তাহলে যক্ষ্মা নির্মূলে কারকামিন আদর্শ চিকিৎসা হতে পারে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
শরীরে পানির ঘাটতি বুঝবেন যেভাবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46273 Hazarika46273Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:49:00 +0000 -Hazarika স্বাস্থ্য ডেস্কপানির অপর নাম জীবন। প্রয়োজনীয় পানির অভাবে শরীরে নানা রোগ-বালাই বাসা বাঁধতে পারে। আমরা কাজের চাপে বেমালুম ভুলে যাই পানি পানের কথা। এতে আস্তে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031351.jpg
শরীরে পানির ঘাটতি বুঝবেন যেভাবে
শরীরে পানির ঘাটতি বুঝবেন যেভাবে

স্বাস্থ্য ডেস্কপানির অপর নাম জীবন। প্রয়োজনীয় পানির অভাবে শরীরে নানা রোগ-বালাই বাসা বাঁধতে পারে। আমরা কাজের চাপে বেমালুম ভুলে যাই পানি পানের কথা। এতে আস্তে আস্তে শরীরের দেখা দিতে পারে পানির অভাব। তবে কিছু লক্ষণ আছে যা দেখে সহজেই বুঝতে পারবেন পানির ঘাটতির কথা। আসুন জেনে নিই সেই লক্ষণগুলো-
১. মূত্রের রং ও পরিমাণ: একজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের দিনে ৬-৭ বার মূত্রত্যাগ হওয়া উচিত। মূত্রত্যাগের পরিমাণ যদি এর কম হয়, তাহলে শরীরে পানির ঘাটতি রয়েছে । সেইসঙ্গে মূত্রের রংও বুঝিয়ে দেয় শরীরে পানির ঘাটতি। মূত্রের রং যদি হলদেটে বা গাঢ? হলুদ হয়, তাহলে অবিলম্বে পানি খাওয়া উচিত।
২. শুষ্ক ত্বক: শুকনো খসখসে চামড়া বুঝিয়ে দেয় শরীরে পানির প্রয়োজন।
৩. মাথাব্যথা ও মাথা ঘোরা: শরীরে পানির অভাবে মাথাব্যথা হয়। সিঁড়ি দিয়ে ওঠা, মাথা নিচু করে কিছু তোলার ক্ষেত্রে মাথা ঘোরে।
৪. জিভ শুকিয়ে যাওয়া: শরীরে পানির অভাবে জিভ শুকিয়ে যেতে পারে। কারণ জিভে তখন প্রয়োজনীয় লালা ক্ষরণ হয় না। ফলে জড়িয়ে যেতে পারে কথাও।
৫. খিদে খিদে ভাব: খাওয়ার পরও খিদে পাচ্ছে। এর কারণ হতে পারে দেহে পানির অভাব।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
গলা থেকে মাছের কাঁটা নামানোর সহজ ৮টি উপায় http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46272 Hazarika46272Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:48:00 +0000 -Hazarika স্বাস্থ্য ডেস্কগলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে কি যে যন্ত্রণা হয় তা কেবল ভুক্তভোগিরাই বলতে পারেন। জীবনে চলার পথে এর শিকার হননি এরকম মানুষও হয়তো খুজেঁ http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031308.jpg
গলা থেকে মাছের কাঁটা নামানোর সহজ ৮টি উপায়
গলা থেকে মাছের কাঁটা নামানোর সহজ ৮টি উপায়

স্বাস্থ্য ডেস্কগলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে কি যে যন্ত্রণা হয় তা কেবল ভুক্তভোগিরাই বলতে পারেন। জীবনে চলার পথে এর শিকার হননি এরকম মানুষও হয়তো খুজেঁ পাওয়া মুশকিল। গলায় মাছের কাঁটা বিঁধলে সবার মনে অসম্ভব অস্বস্তির সৃষ্টি হয়। যা খুবই পীড়াদায়ক। তাই গলায় আটকা মাছের কাঁটা নামানোর উপায় সম্পর্কে আমাদের জ্ঞাত থাকা দরকার। নিচে গলা থেকে মাছের কাঁটা নামানোর সহজ ৮টি উপায় নিয়ে আলোচনা করা হলো :
পানি পান করুন : গলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে পানি পান করুন। পারলে হালকা গরম পানির সঙ্গে সামান্য পরিমাণ লবণ মিশিয়ে পান করুন। এতে গলায় আটকা মাছের কাঁটা নরম হয়ে নেমে যায়।
সাদা ভাত গিলুন: গলায় আটকা মাছের কাঁটা সাদা ভাত খেয়ে খুব সহজে নামানো যায়। এজন্য আপনাকে ভাতকে ছোট ছোট বল বানিয়ে নিতে হবে। তারপর পানি দিয়ে গিলে ফেলতে হবে। এতে সহজে গলায় আটকা মাছের কাঁটা নেমে যাবে। মনে রাখবেন, শুধু ভাত খেলে কিন্তু কাঁটা নামবে না।
কলা খান: গলায় মাছের কাঁটা বিঁধলে দেরি না করে পারলে চটজলদি একটি কলা খান। কলা খেতে খেতে কখন যে কাঁটা নেমে যাবে তা আপনি টেরও পাবেন না।
লেবু খান: গলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে এক টুকরা লেবু নিন। তাতে একটু লবণ মাখিয়ে চুষে চুষে এর রস খান। দেখবেন কাঁটা নরম হয়ে নিমিষেই নেমে গেছে।
ভিনেগার খান: পানির সঙ্গে সামান্য পরিমাণ ভিনেগার মিশিয়ে পান করলে গলায় আটকা মাছের কাঁটা খুব সহজে নেমে যায়। এটি ঠিক লেবুর মতো কাজ করে।
অলিভ ওয়েল খান: গলায় কাঁটা বিঁধেছে? তাহলে মোটেই দেরি না করে একটু অলিভ অয়েল খান। এতে কাঁটা পিছলে গলা থেকে নেমে যাবে।
কোকাকোলা পান করুন: গলায় আটকা কাঁটা নামানোর আধুনিক পদ্ধতি হচ্ছে কোকাকোলা। গলায় কাঁটা আটকার সঙ্গে সঙ্গে এক গ্লাস কোক পান করলে তা নরম হয়ে নেমে যায়।
হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা: গলায় আটকা মাছের কাঁটা নামানোর সর্বাধিক কার্যকরী চিকিৎসা হচ্ছে হোমিওপ্যাথি। এজন্য আপনাকে নিকটস্থ ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। এছাড়া শুকনো মুড়ি খেলেও সমাধান পাওয়া যায়।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
ছাগলনাইয়ায় পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীদের কর্মবিরতি http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46271 Hazarika46271Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:44:00 +0000 -Hazarika ফেনী প্রতিনিধি॥ রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন ভাতা ও পেনশনসহ অন্যান্য সুবিধা প্রদানের দাবীতে ছাগলনাইয়ায় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পূর্ণ দিবসকর্মবিরতি পালন করছে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031084.jpg
ছাগলনাইয়ায় পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীদের কর্মবিরতি
ছাগলনাইয়ায় পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীদের কর্মবিরতি

ফেনী প্রতিনিধি॥ রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন ভাতা ও পেনশনসহ অন্যান্য সুবিধা প্রদানের দাবীতে ছাগলনাইয়ায় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পূর্ণ দিবস
কর্মবিরতি পালন করছে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ১ম দিন ছাগলনাইয়া কর্মকর্তা-কর্মচারী এসোসিয়েশনের উদ্যোগে সোমবার (১৫ জানুয়ারী) সকালে পৌর মিলনায়তনের সামনে কর্মবিরতি পালনে অংশ নেয় এসোসিয়েশনের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, সাধারন সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন বুলি, পৌর সচিব আবদুল হাই, কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন, মিজানুর রহমান, এনায়েত উল্যাহ, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
আ.লীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46270 Hazarika46270Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:44:00 +0000 -Hazarika জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দুই সদস্যকে বহিষ্কার করার প্রতিবাদে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল করেছে জেলা আওয়ামী http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031046.jpg
আ.লীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল
আ.লীগের দুই নেতার বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল

জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দুই সদস্যকে বহিষ্কার করার প্রতিবাদে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল করেছে জেলা আওয়ামী লীগের একাংশ। পরে এক সমাবেশে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা।
শনিবার জেলা আওয়ামী লীগের এক বিজ্ঞপ্তিতে পূর্বপুরুষদের স্বাধীনতাবিরোধিতার অভিযোগ তুলে তিনজনকে বহিষ্কার করা হয়। এ অভিযোগে জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কালাই উপজেলা চেয়ারম্যান মিনফুজুর রহমান, সদস্য ও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুস এবং শওকত হাবিব লজিককে বহিষ্কার করে জেলা কমিটি। এরই প্রতিবাদে সোমবার দুপুরে জয়পুরহাট শহরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সামছুল আলম দুদু ও সাধারণ সম্পাদক এস এম সোলায়মান আলীর বিরুদ্ধে ঝাড়– মিছিল বের করে জেলা আওয়ামী লীগের একাংশ। পরে জয়পুরহাট শহরের জিরো পয়েন্টে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য দেন- আওয়ামী লীগ নেতা ও বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান বেদারুল ইসলাম বেদিন, আওয়ামী মহিলালীগ সভানেত্রী রেবেকা সুলতানা, যুবলীগ সভাপতি সুমন কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক রাছেল মিলন দেওয়ান, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি এ ই এম মাসুদ রেজা, জেলা শ্রমিকলীগ সহ-সভাপতি ইকবাল হোসেন সাবু প্রমুখ। বহিষ্কৃত নেতা মিনফুজুর রহমান জানান, সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে, এতে দলের নেতাকর্মীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে মিছিল ও সমাবেশ করেছে। এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল ও শান্তি কমিটি কিংবা রাজাকারের কোন বংশধর আওয়ামী লীগে থাকতে পারবেন না বা নৌকা প্রতীক পাবেন না। কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে। বিষয়টি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ কেন্দ্রীয় কমিটিতে অনুমোদনের জন্য অবহিত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে যা করার কেন্দ্রীয় কমিটিই করবে।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
খেলা নিয়ে সংঘর্ষে ৩ শিক্ষকসহ আহত ১১ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46269 Hazarika46269Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:43:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে দুই বিভাগের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের ঘটনায় তিন শিক্ষক ও আট শিক্ষার্থীসহ ১১ জন আহত হয়েছেন। রবিবার http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516031016.jpg
খেলা নিয়ে সংঘর্ষে ৩ শিক্ষকসহ আহত ১১
খেলা নিয়ে সংঘর্ষে ৩ শিক্ষকসহ আহত ১১

স্টাফ রিপোর্টার॥ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে দুই বিভাগের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের ঘটনায় তিন শিক্ষক ও আট শিক্ষার্থীসহ ১১ জন আহত হয়েছেন। রবিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেডিয়ামে খেলা শেষে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতরা হলো বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের সহযোগী ও সাবেক ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক মো. আব্দুল্যাহ আল মারুফ, প্রভাষক জিহাদ আহমেদ, শিক্ষার্থী আলমগীর, শান্ত, কিবরিয়া, তারেক, আশিকুর রহমান এবং ফিন্যান্স বিভাগের তৃতীয় বর্ষের মেহেদি হাসান, মারুফ ও রিফাত। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগ এবং ফিন্যান্স বিভাগের মধ্যে আন্তঃবিভাগ ক্রিকেট প্রতিযোগিতার সেমি ফাইনাল খেলা চলছিল। খেলায় ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগ জিতে যাওয়ায় বিভাগের শিক্ষার্থীরা উল্লাসে মেতে ওঠে। এ সময় দুই দলের খেলোয়াড়রা একে অপরকে কটাক্ষ করে কথা বলাবলি করছিল। পরে শিক্ষকরা মাঠ থেকে বের হয়ে গেলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও ফিন্যান্স বিভাগের রিফাতসহ কয়েকজন ভূগোল বিভাগের শিক্ষার্থীদের মারধর শুরু করে। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষ ঠেকাতে গিয়ে অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক মো. আব্দুল্যাহ আল মারুফ ও প্রভাষক জিহাদ আহমেদ আহত হন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
সীমান্তে গুলিতে বাংলাদেশি নিহতের ঘটনায় বিএসএফের দুঃখ প্রকাশ http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46268 Hazarika46268Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:43:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দৈখাওয়া সীমান্তে গুলিতে শফিকুল ইসলাম (২৬) নামে এক বাংলাদেশি নিহতের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516030970.jpg
সীমান্তে গুলিতে বাংলাদেশি নিহতের ঘটনায় বিএসএফের দুঃখ প্রকাশ
সীমান্তে গুলিতে বাংলাদেশি নিহতের ঘটনায় বিএসএফের দুঃখ প্রকাশ

স্টাফ রিপোর্টার॥ লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দৈখাওয়া সীমান্তে গুলিতে শফিকুল ইসলাম (২৬) নামে এক বাংলাদেশি নিহতের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল গোলাম মোর্শেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘নিহত শফিকুল ইসলামের মরদেহ রবিবার রাতেই হাতীবান্ধা থানা পুলিশের নিকট কোচবিহার জেলার শীতলকুচি থানা পুলিশ হস্তান্তর করেছে। সীমান্তে হত্যার ঘটনায় বিএসএফ দুঃখপ্রকাশ করেছে। ভারতীয় বিএসএফের টহল দলের এক সদস্যের ওপর চড়াও হওয়ার ঘটনায় আত্মরক্ষার্থে এই ঘটনা ঘটেছে বলে পতাকা বৈঠকে বিএসএফ দাবি করেছে। তবে ভবিষ্যতে এমন ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য তারা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘অবৈধভাবে কোনও বাংলাদেশি যাতে সীমান্তে না যায় কিংবা সীমান্তে অনুপ্রবেশ না করে এজন্য বিজিবির পক্ষ থেকে সকলকে অনুরোধ করা হচ্ছে।’ শনিবার ভোর পৌনে ৫টার দিকে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার দৈখাওয়া সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে শফিকুল ইসলাম (২৬) নামে নিহত বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় রবিবার (৩১ ডিসেম্বর) বিজিবি ও বিএসএফের ব্যাটালিয়ন কমান্ডার পর্যায়ে এক পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে এ ঘটনার ব্যাপারে দুঃখ প্রকাশ করেছে বিএসএফ। তবে ভবিষ্যতে রাতে কেউ যেন অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম না করে কিংবা তারকাটার বেড়া না কাটে সেজন্য বিজিবির নিকট অনুরোধ জানিয়েছে বিএসএফ। পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে লালমনিরহাট-১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল গোলাম মোর্শেদ, উপ-পরিচালক মেজর জিয়া মো. মাসুম বিন কুদ্দুস উপস্থিত ছিলেন। ভারতের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার-১০০ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল অবিনাশ রঞ্জন, উপ-পরিচালক মেজর হিমাংশু গৌড়।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
সিংড়াকে নিরাপদ শহর গড়তে প্রশাসনকে কঠোর হতে হবে http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46267 Hazarika46267Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:42:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, সিংড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন থেকে মাদক, জুয়াসহ সকল প্রকার অপরাধমুক্ত করে নিরাপদ শহর গড়তে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516030939.jpg
সিংড়াকে নিরাপদ শহর গড়তে প্রশাসনকে কঠোর হতে হবে
সিংড়াকে নিরাপদ শহর গড়তে প্রশাসনকে কঠোর হতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার॥ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, সিংড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন থেকে মাদক, জুয়াসহ সকল প্রকার অপরাধমুক্ত করে নিরাপদ শহর গড়তে হবে। আর এজন্য সকল প্রকার অপরাধ দমনে প্রশাসনকে প্রয়োজনে আরো কঠোর হতে হবে। কারণ তরুণদের প্রধান শত্রু মাদক ও জুয়া। রবিবার নাটোরের সিংড়ায় উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। উপজেলা কৃষি অফিস হলরুমে ইউএনও সন্দ্বীপ কুমার সরকারের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম, পৌর মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শামীম হোসেন, সিংড়া থানার তদন্ত পুলিশ পরিদর্শক নেয়ামুল আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাজ্জাদ হোসেন, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আমজাদ হোসেনসহ ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ।

সম্পাদক : জয়নাল হাজারী। ফোন : ০২-৯১২২৬৪৯, ০১৭৫৬৯৩৮৩৩৮
]]>
দেড় লাখ টাকা হলেই সুস্থ হয়ে যাবেন লেদু মিয়া http://www.hazarikapratidin.com/details.php?id=46266 Hazarika46266Pratidin Tue, 16 Jan 2018 21:41:00 +0000 -Hazarika স্টাফ রিপোর্টার॥ শিশু বয়সে গাছ থেকে পড়ে আঘাত পাবার পরও কাজ করতে হয়েছে প্রতিদিন। বিধবা মাকে নিয়ে বেঁচে থাকার সংগ্রামে টিকতে ব্যথা তাড়াতে খাওয়া হয়েছে http://www.hazarikapratidin.com/2018/01/15/1516030903.jpg
দেড় লাখ টাকা হলেই সুস্থ হয়ে যাবেন লেদু মিয়া
দেড় লাখ টাকা হলেই সুস্থ হয়ে যাবেন লেদু মিয়া

স্টাফ রিপোর্টার॥ শিশু বয়সে গাছ থেকে পড়ে আঘাত পাবার পরও কাজ করতে হয়েছে প্রতিদিন। বিধবা মাকে নিয়ে বেঁচে থাকার সংগ্রামে টিকতে ব্যথা তাড়াতে খাওয়া হয়েছে একের পর এক এন্টিবায়োটিক। অতিরিক্ত ব্যথার ওষুধ খেতে গিয়ে ধীরে ধীরে নষ্ট হয়ে গেছে কোমরের দুটি হিপ জয়েন্ট। তাই টগবগে যুবক বয়সেও লোহার এঙ্গেলে ভর করেই তার পথচলা। চিকিৎসকদের দেখানো কৃত্রিম হিপ জয়েন্ট স্বাভাবিকভাবে চলার স্বপ্ন দেখাচ্ছে তাকে। ইতোমধ্যে পঙ্গু হাসপাতালে গিয়ে লাগানো হয়েছে বাম পায়ের কৃত্রিম হিপ জয়েন্ট। দেশ বিদেশের হৃদয়বান মানুষের সহযোগিতায় বিগত মাস ছয়েক আগে প্রায় তিন লাখ টাকা ব্যয়ে এটি সম্ভব হয়। কিন্তু অপর হিপ জয়েন্টটি লাগাতে গিয়ে টাকার অভাবে বিগত ২৫ দিন ধরে রাজধানীর জাতীয় অর্থোপেডিক ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে (পঙ্গু হাসপাতালে) অসহায় দিন কাটাচ্ছে তরুণটি।
দ্বিতীয় অপারেশনে তার প্রয়োজন আড়াই লাখ টাকা। নানা সহায়তায় এক লাখ টাকা হাতে এলেও বাকি দেড় লাখ টাকা যোগাড়ে হিমশিম খাচ্ছেন তিনি। তাই সমাজের বিত্তবানদের কাছে তার স্বাভাবিক পথ চলায় সহায়তা করতে অনুরোধ করেছেন তিনি।
বলছিলাম কক্সবাজার সদর উপজেলার পোকখালী ইউনিয়নের পূর্ব পোকখালীর পিতৃহীন মো. লেদু মিয়ার (৩০) কথা। চাল-চুলোহীন লেদু মিয়া মৃত জাফর আলম ও বিধবা আনচারু বেগমের একমাত্র ছেলে। তিনি বর্তমানে ঢাকার জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালের ৩য় তলায় ইএফপি ৬০ নম্বর বেডে ভর্তি রয়েছেন।
তিন সন্তানের জনক লেদু মিয়া জানান, জন্মের দু’বছরের মাথায় বাবাকে হারিয়ে প্রাইমারির গন্ডিটাই পার হওয়া সম্ভব হয়নি। বিধবা মাকে নিয়ে শিশু বয়সেই বাড়ি-ভিটাহীন জীবন যুদ্ধে নামতে হয়। এলাকায় অন্যের বাড়িতে নারকেল পারতে গিয়ে গাছ থেকে পড়ে আঘাত পায় ৭-৮ বছর বয়সে। তৎক্ষণাত তেমন ব্যথা অনুভূত না হলেও ধীরে ধীরে এটি বাড়তে থাকে। ভারি কাজ করা কষ্ট কর হওয়ায় চাকরি নেয়া হয় একটি দোকানে। মাকে সেবা করতে বউ আনার পর পুরোনো ব্যথাটি তীব্র হয়। দোকানে হিসাবের কাজ করতে গিয়ে বসে থাকা ও ব্যথানাশক এন্টিবায়োটিক খেতে গিয়ে শুকিয়ে বিকল হয়ে যায় হিপ জয়েন্ট দুটি। সমস্যা দেখা দেয় লিভার এবং কিডনিতেও। এটি বিগত ১০ বছর আগের ঘটনা। স্বাভাবিক চলাফেরা কষ্টকর হওয়ায় ছেড়ে দিতে হয় চাকরিটি। তিনি জানান, তখন থেকেই ক্র্যাচে ভর করে চলে হাটা-চলা। নানা প্রচারণার মাইকিং, অন্যের অনুগ্রহের উপর চলছে স্ত্রী, তিন সন্তান ও বৃদ্ধা মাকে নিয়ে চলমান সংসারটি। একসময় নিজ আয়ের উপর নির্ভর করে চলা জীবনে অন্যের অনুগ্রহ নেয়া খুবই বেদনাদায়ক। তাই নিজের উপর নির্ভরশীল হতে সবার সহযোগিতায় কৃত্রিম হিপ জয়েন্টগুলো লাগাতে চাচ্ছি। গত রমজানে সবাই সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন বলেই বাম পায়ে হিপ জয়েন্ট সফলভাবে বসানো সম্ভব হয়েছে।
একযুগ আগেও কর্মঠ তরুণ হিসেবে চাকরি করা লেদু মিয়া বলেন, এখন ডান পায়ের অপারেশনে প্রায় ২ লাখ টাকার দরকার। কিন্তু হতদরিদ্র বাড়ি-ভিটেহীন হিসেবে একার পক্ষে এত টাকা যোগাড় করা সম্ভব নয়। ইতোমধ্যে এক লাখ টাকা যোগাড় হলেও বাকি আছে আর মাত্র দেড় লাখ টাকা। তাই সমাজের হৃদয়বান ব্যক্তি ও প্রবাসি ভাইয়েরা ইচ্ছে করলে আমার পঙ্গুত্বের অবসান হতে পারে। তাই শেষবারের মতো অন্যের অনুগ্রহ কামনা করেন লেদু মিয়া।
পোকখালী ইউপি চেয়ারম্যান রফিক আহমদ বলেন, লেদু মিয়া এতিম ও ভূমিহীন। কিন্তু ছেলে হিসেবে সৎ। গত জুনমাসে সবার সহযোগিতায় বাম পায়ে কৃত্রিম হিপ জয়েন্ট লাগানো হয়েছে। স্বাভাবিকতা ফেরাতে ডান পায়ের অপারেশন করাতে আবারও ভর্তি হয়েছে হাসপাতালে। আমরা আমাদের সাধ্যমতো সহযোগিতা দিয়েছি। সবাই সবার স্থান থেকে এগিয়ে এলে তার জীবনটা দ্রুত একটা গতি পাবে বলে আমার বিশ্বাস। লেদু মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে এই ০১৮১২৯৫১৪৫০ নম্বরে।

]]>