রবিবার, ২৬ মে, 2০২4
বঙ্গবন্ধু পরিষদের" নামে সাইনবোর্ড দিয়ে দোকান দখল।
বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুর চালিয়ে দোকান মালিককে মামলা দিয়ে গ্রাম ছাড়া।
Published : Monday, 25 March, 2024 at 8:25 PM, Update: 25.03.2024 10:07:25 PM

সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি:
আওয়ামী লীগ গত ৭ই জানুয়ারি ২০২৪ সালের জাতীয় নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে ৫ম বারের মতো ক্ষমতায় আসে, এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে যে যার খুশি মতো নাম দিয়ে গড়ে তুলেছে বহু সাইনবোর্ড সর্বস্ব অস্তিত্বহীন রাজনৈতিক সংগঠন। এসবের বাহারি নাম হলেও বাংলাদেশে এটা নতুন কোনো ঘটনা নয়। যে দল ক্ষমতায় আসে সে দলের নেতা-নেত্রীর নামে এ ধরনের নাম সর্বস্ব সংগঠনের আত্মপ্রকাশ করে দাপিয়ে বেড়ায় এসব চক্রের সদস্যরা। এরা এসব সাইনবোর্ড ব্যবহার করে বিভিন্ন দিবসে অনুষ্ঠান আয়োজন করে নেতাদের সঙ্গে ছবি তুলে ফেসবুকে পোস্ট করে। তবে তাদের উদ্দেশ্য একটাই চাঁদাবাজি। এসব কর্মকান্ডে আওয়ামী লীগ নিজেই বিব্রত। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বা তার পরিবারের সদস্যেদের নামে কোনো সংগঠন করতে হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের অনুমোদন নিতে হয়। কিন্তু কে নেয় এই অনুমোদন?

বঙ্গবন্ধু থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রীর নাম ও অস্তিত্বহীন এসব সংগঠনের অফিসে অনেক প্রভাবশালী নেতাদের ছবি ব্যবহার করে সুযোগ সন্ধানীরা ফায়দা তোলার চেষ্টা করে সাধারণ মানুষের জায়গা জমি দখল করে সরকার কে বিব্রত করছে এই চক্রটি। তেমনই একটি কর্মকাণ্ডের তথ্য অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে,সোনাগাজী উপজেলার তাকিয়া বাজারে অন্যের দোকান দখল করে রাতের আধারে "বঙ্গবন্ধু পরিষদের" নামে সাইনবোর্ড লাগিয়ে সেখানে বঙ্গবন্ধু, প্রধানমন্ত্রী ও ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী,উপজেলা চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, পৌর মেয়র এডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন,ফয়েজ কবির সহ কয়েকজনের বড় বড় ছবি লাগিয়ে দিয়ে জোরপূর্বক দোকান দখলের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় পাইকপাড়া গ্রামের কালাম মাস্টারের ছেলে তাকিয়া বাজার কমিটির সভাপতি মো: রিয়াদ (৩৫) ও বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: রিপন (৪৫) সহ তার বাহিনীর বিরুদ্ধে।

রবিবার (২৪ মার্চ) এমন অভিযোগ করেন উপজেলার কুঠিরহাট চরমজলিশপুর ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের সামছুল হকের ছেলে আবদুল কুদ্দুস (৫২)।
ভুক্তভোগী আবদুল কুদ্দুস বলেন, সোনাগাজীর চর বদরপুর গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে মোহাম্মদ আব্দুল কাদের থেকে ৮১৩ দাগের ভুমি সরকার অধিগ্রহণ করে সরকারি সড়ক নির্মাণ করে রাস্তার প্রয়োজনীয় অরিক্ত জায়গা হিসেবে তার ভোগদখলীয় পাইকপাড়া মৌজার খতিয়ান নং-৫২৬ সাবেক ৮১৩ হাল দাগের দাগ নং ১৭৬০ এর ৭ শতকের মধ্যে তিনভাগের এক ভাগ ২ শতক ৩৩ পয়েন্ট জায়গা যাহার দৈর্ঘ্য ১৪ চৌদ্দ হাত এবং প্রস্থ নয় হাত ভুমির উপর নির্মাণাধীন টিন সেট দোকান ২০০৬ সালে ৯৫ হাজার টাকা দিয়ে খরিদ করে ১৭ বছর ধরে ভোগদখলে রয়েছেন এবং গত ১৪ই অক্টোবর ২০২২ সালে জমাখারিজ পরিশোধও করেন।

আব্দুল কুদ্দুস আরো বলেন, আমি দোকানটি ক্রয় করে স্থানীয় লোকজনের কাছে ভাড়া দিয়ে পরিবারের সদস্যদের কোন রকম বরণ পোষন চালিয়ে আসছি। ২০২৪ সালের জানুয়ারি মাসের শেষের দিকে আমার দোকানটি পুনরায় মেরামত করে স্থানীয় দ্বীন মোহাম্মদ নামের একজনের সাথে চুক্তি করে ভাড়া দিই। ২৪ ফেব্রুয়ারী রাতে বাজার কমিটির সভাপতি রিয়াদ ও সলিম উল্যাহ রিপন বাহিনীর ১০ থেকে ১৫ জন নিয়ে দোকানের তালা ভেঙে বঙ্গবন্ধু পরিষদের নামে রঙিন সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিয়ে দোকান দখল করে। আমি জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ কল করলে সোনাগাজী মডেল থানার পুলিশ এসে তাদের ধাওয়া দিলে তারা পালিয়ে যায়। দোকানের সামনে ফেলে রাখা কিছু প্লাস্টিকের চেয়ার উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এসআই জাহাঙ্গীর। পুলিশ কে অবহিত করায় দোকানের মালিক আব্দুল কুদ্দুস কে চাপসৃষ্টি করতে কৌশলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ভাংচুর করে দোকানের মালিক আব্দুল কুদ্দুসের বিরুদ্ধে ৬ মার্চ ২০২৪ ইং সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী সোনাগাজী আদালতে বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক সলিম উল্যাহ রিপন বাদী হয়ে সিআর মামলা-১০৯/২০২৪ দায়ের করেন।

এই বিষয়ে ভুক্তভোগী আবদুল কুদ্দুস প্রতিকার চেয়ে পাইকপাড়া গ্রামের আবদুল আউয়ালের ছেলে সলিম উল্যাহ রিপন (৪৫),কালাম মাস্টারের ছেলে বাজার কমিটির সভাপতি মো: রিয়াদ(৩৫),পাইকপাড়া গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে কালা মানিক (৫০) সহ অজ্ঞাত ১৫ জন কে আসামি করে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়,আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক,ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী,ফেনী-৩ আসনের সংসদ সদস্য লে: জেনারেল (অব:) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী,ফেনী জেলা প্রশাসক,র‍্যাব-৭ এ ভুক্তভোগীর দোকান উদ্ধার ও তার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত ভাবে অভিযোগ দিয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়ায় গত দুইমাস ধরে গ্রাম ছাড়া হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন আবদুল কুদ্দুস। অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিতে তার ব্যক্তিগত মুঠো ফোনে দেওয়া হচ্ছে হুমকি ধামকি।

এবিষয়ে তাকিয়া বাজার কমিটির সভাপতি মো: রিয়াদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, পদ-পদবী যাদের আছে, যারা দখল করছে তাদের জিজ্ঞেস করেন, আমি এলাকায় ছিলাম না,আমি দখলের সাথে যুক্ত না আমাকে যুক্ত করছে, আমার বাবা অসুস্থ আমি তাকে নিয়ে ব্যস্ত আছি বলেই মোবাইলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক সলিম উল্যাহ রিপনের কাছে বঙ্গবন্ধু পরিষদের নামে কেন অন্যের দোকান কেন দখল করেছেন এবং দোকানের মালিকের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুরের অভিযোগ এনে মামলা দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক,আব্দুর কুদ্দুস একজন ভূমিদস্যু, সে তার দোকান মেরামত করতে গিয়ে মাস্টার আবুল ফজলের জায়গা দখল করে।তার পরিপ্রেক্ষিতে আবুল ফজল বাহার কমিটির কাছে অভিযোগ দেয়,আমরা চেয়েছিলাম বিষয়টি বাজারে সমাধান করার জন্য কিন্তু সে আমাদের অপমানিত করে আইনের আশ্রয় নেয়। আবুল ফজলের জায়গা দখল করলে তিনি মামলার বাদী না হয়ে আপনি কেন হয়েছেন জানতে চাইলে ক্ষিপ্ত হয়ে মোবাইল ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

এ অভিযোগের বিষয়ে ফেনীর জেলা প্রশাসক মোছা. শাহীনা আক্তারের কাছে বঙ্গবন্ধু পরিষদের নামে অন্যের দোকান দখলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এবিষয়ে কারো কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ফেনী জেলা পরিষদের সাবেক ও সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ফয়েজুল কবির এই বিষয়ে বলেন, তাকিয়া বাজারে দোকান দখল করে বঙ্গবন্ধু পরিষদ করায় আমাকে দোকানের মালিক মোবাইল ফোনে জানিয়েছে,তবে যারা বঙ্গবন্ধু পরিষদে আমার ছবি ব্যবহারের বিষয়ে আমি অবগত নই তারা আমার অনুমতি না নিয়ে ছবি লাগিয়েছে।
আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল হাজারী।   ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: গোলাম কিবরীয়া হাজারী বিটু্।   প্রকাশক: মোঃ ইব্রাহিম পাটোয়ারী।
সহ সম্পাদক- রুবেল হাসান: ০১৮৩২৯৯২৪১২।  বার্তা সম্পাদক : জসীম উদ্দিন : ০১৭২৪১২৭৫১৬।  সার্কুলেশন ম্যানেজার : আরিফ হোসেন জয়, মোবাইল ঃ ০১৮৪০০৯৮৫২১।  রিপোর্টার: ইফাত হোসেন চৌধুরী: ০১৬৭৭১৫০২৮৭।  রিপোর্টার: নাসির উদ্দিন হাজারী পিটু: ০১৯৭৮৭৬৯৭৪৭।  মফস্বল সম্পাদক: রাসেল: মোবা:০১৭১১০৩২২৪৭   প্রকাশক কর্তৃক ফ্ল্যাট নং- এস-১, জেএমসি টাওয়ার, বাড়ি নং-১৮, রোড নং-১৩ (নতুন), সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা থেকে প্রকাশিত এবং সিটি প্রেস, ইত্তেফাক ভবন, ১/আর কে মিশন রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত।  বার্তা, বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন বিভাগ: ০২-৪১০২০০৬৪।  ই-মেইল : [email protected], web : www.hazarikapratidin.com
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি